প্রধান শিক্ষক কর্তৃক ভুয়া প্রবেশপত্র দেয়ার সংবাদ প্রকাশে দৌঁড়ঝাপ, ভুক্তভোগীকে বিভিন্ন ধরনের হুমকি

0
26

মুক্ত খান, রুপদিয়া

যশোরে সদর উপজেলা বহু বিতর্কিত দিয়াপাড়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের ভুলে চলতি শিক্ষাবর্ষে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেনি এক পরিক্ষার্থী। এতে ওই পরিক্ষার্থী ক্ষোভে-হতাশায় আত্মহত্যার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়।

শিরোনামে সংবাদ প্রকাশ পাওয়ায় বিভিন্ন মহলে দৌড় ঝাপ শুরু করেছে বিতর্কিত প্রধান শিক্ষক শাহাজান ও সহকারী শিক্ষক মকবুল হোসেন। এই সংবাদ প্রকাশ পর থেকে বেরিয়ে আসছে অনিয়মের একাধিক অভিযোগ। স্কুলটাকে নিজের পারিবারিক আয়ের উৎস হিসাবে গড়ে তুলেছেন। নিজে প্রধান শিক্ষক, ভাই সভাপতি, ছেলে, ভাইরাভাই সকলে এক সাথে চাকরী করে। ছেলে চাকরি করলেও কখনো স্কুলে আসে না।

যশোরে আর একটা প্রতিষ্ঠানে চাকরি করে। স্কুলে ছেলে মেয়েদের হলফনামায় লিঙ্গ ভুল করে সংশোধনের নামে মাথা প্রতি তিন হাজার করে টাকা নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে।

এই সংবাদ প্রকাশ পাওয়ার পর ভুক্তভুগিকে বিভিন্ন ভাবে হুমকি ধামকি দিচ্ছে, এ ঘটনায় শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর মাঝে তীব্র অসন্তোষ বিরাজ করছে।

ওই পরীক্ষার্থীর অভিভাবকদের অভিযোগ করে বলে আমার মেয়ে নিয়ে নিরাপত্তা হিনতায় ভুগছি,আমার মেয়ে ও আমাদের নিরাপত্তা চাই, এবং আমার মেয়ের জীবণ নষ্ট করেছে প্রধান শিক্ষাক শাহাজানের বিচার চাই।

আগামীতে যাতে আমার মেয়ে এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারে সেই ব্যাবস্থা করে দেওয়ার দাবি জানায়।

উল্লেখ্য যে এ ব্যাপারে সাংবাদিকরা প্রধান শিক্ষক শাহাজানের সাথে কথা বলতে গেলে তিনি কোন কথা বলবেনা বলে জানিয়ে দেন এবং সাংবাদিকদের সঙ্গে অশোভন আচরণ করেন।

এ ব্যাপারে ঐ পরিবার ও গ্রামবাসি প্রধান শিক্ষক শাহাজান। সরকারি শিক্ষক মকবুল,সহ যারা এ সাথে জড়িত তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করে।