যশোরে ছিনতাইয়ের ঘটনায় মামলা ॥ প্রধান অপরাধী মোস্তফা গ্রেফতার

0
11

বিশেষ প্রতিনিধি

পূর্ব শক্রতার কারনে গতিরোধ করে ছুরিকাঘাত পূর্বক নগদ সাড়ে ৮ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনায় কোতয়ালি মডেল থানায় রোববার রাতে মামলা হয়েছে। মামলায় আসামী করা হয়েছে, যশোর সদর উপজেলার মুড়োলী পূর্ব পাড়ার মৃত শেখ আহম্মদ আলীর ছেলে গোলাম মোস্তফাসহ অজ্ঞাতনামা ৪/৫জন। রোববার ৮ মে রাতে মামলাটি করেছেন, যশোর শহরের বারান্দীপাড়া মেঠো পুকুর পাড়ের মৃত কছিম উদ্দিনের ছেলে আব্দুল মান্নান। পুলিশ গোলাম মোস্তফাকে গ্রেফতার করেছে।

মামলায় আব্দুল মান্নান বলেছেন, গোলাম মোস্তফার সাথে বাদির পারিবারিক ভাবে দীর্ঘদিন যাবত শত্রুতা চলে আসছে। তারই সূত্রধরে বাদির ছেলে হানিফ গাজী (৩০) কে গোলাম মোস্তফা খুন জখমের হুমকী দিয়ে আসছে। গত ৭ মে শনিবার বিকেলে বাদির ছেলের বউ লাকি খাতুন অসুস্থ্য হওয়ায় তাকে ছেলে হানিফ গাজী চিকিৎসার জন্য যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের সামনে মর্ডাণ কিনিকে নিয়ে যায়। সেখানে খাবার পানি প্রয়োজন হওয়ায় হানিফ গাজী তার স্ত্রীকে মর্ডাণ কিনিকের উপরে বসিয়ে রেখে নীচে পাশের্^ খাবার পানি সংগ্রহ করে কিনিকে উঠার সময় বিকেল ৬ টায় মর্ডাণ কিনিকের সামনে ঘোপ নওয়াপাড়া রোডে পৌছালে গোলাম মোস্তফার হুকুমে তার সহযোগী অজ্ঞাতনামা ৪/৫জন হানিফ গাজীকে গতিরোধ করে মারপিট পূর্বক ছুরিকাঘাত করে।

এ সময় বাদির ছেলের পকেটে থাকা চিকিৎসার জন্য সাড়ে ৮ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। হানিফ গাজীর ডাক চিৎকারে তার আশপাশের লোকজন ও স্ত্রীসহ দু’জন এগিয়ে এলে প্রাণ নাশের হুমকী দিয়ে দ্রুত চলে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় হানিফ গাজীকে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। এ ঘটনায় কোতয়ালি মডেল থানায় মামলা হলে পুলিশ রোববার ৮ মে রাথে মুড়লী পুর্ব পাড়া থেকে গোলাম মোস্তফাকে গ্রেফতার করে। সোমবার তাকে আদালতে সোপর্দ করে।