পরিবারের সদস্যের মৃত্যু দিতে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে আবেদন করেছে ঝিকরগাছার নির্যাতিত পল্লব

0
14

ঝিকরগাছা প্রতিনিধি

পরিবারের সকল সদস্যের মৃত্যু দিতে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে লিখিত আবেদন করেছে যশোরের ঝিকরগাছার নির্যাতিত পরিবারের সদস্য মোঃ শহিদুল ইসলাম পল্লব নামের এক ব্যক্তি। সে উপজেলার ৩নং শিমুলিয়া ইউনিয়নের উত্তর রাজাপুর গ্রামের মোঃ সোহরাব হোসেনের ছেলে। ইতিপূর্বে মোঃ শহিদুল ইসলাম পল্লব বিচারের আশায় বিভিন্ন দপ্তরের আবেদন ও ‘আদালতের রায় ডিক্রী না মানায় এবং পরিবারের উপর অমানবিক নির্যাতন থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার জন্য প্রশাসনের সাহায্য ও সহযোগিতা চাই’ শিরোনামে হাতে ডিজিটাল প্যানায় নিয়ে দ্বারে দ্বারে ঘুরতে দেখা গেছে।

জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে আবেদনের সূত্রে জানা যায়, রবিবার (০৮ মে) একটি লিখিত আবেদন জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে গত ৩১ জানুয়ারী স্মারক নং পি-৭৬ একটি লিখিত আবেদন দাখিল করেন। আবেদনের প্রেক্ষিতে দপ্তরের পক্ষে ১০ ফেব্রুয়ারী এসএ শাখা থেকে ৩১.৪৪.৪১০০.০০৫.১৫.০০১.২২-২৩৬ নং স্মারকের মাধ্যমে উপজেলা প্রশাসনকে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেওয়া হলেও, উনারা কোন প্রকার পদক্ষেপ গ্রহণ না করে জেলা প্রশাসকের দপ্তরের নির্দেশের বিপরীতে গিয়ে স্থানীয় শিমুলিয়া ইউনিয়নের ইউপি সদস্য মোঃ মাহাবুর রহমান ও তার সহযোগীদের মাধ্যমে তার (মোঃ শহিদুল ইসলাম পল্লব) পরিবারের উপরে মারাত্মক ভাবে ক্ষিপ্ত হয়ে নির্যাতন, নিপীড়ন সহ অন্যায় ভাবে বিভিন্ন সময়ে তাদের সত্ত্ব দখলীয় পুকুরের প্রায় ২০ লক্ষাধিক টাকার মৎস্য লুটপাট করে নিয়ে পল্লবের পরিবারকে নিঃস্ব করে পথে বসিয়ে দেউলিয়া করে দিয়েছে।

যেটা সম্পূর্ণ সুপরিকল্পিত মানবাধিকার লঙ্ঘন এবং তার (পল্লব) পরিবারকে অনাহারে রেখে হত্যার চেষ্টার সামিল কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। বিগত সময়ে পল্লবের পরিবারের সকল বিষয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে লিখিত আবেদনের মাধ্যমে অবগত করা হয়েছে। যাহার স্মারক নং পি-৩৯৬, তাং ০৫/০৪/২০২২। মোঃ শহিদুল ইসলাম পল্লবের পরিবারের প্রতি নিষ্ঠুর যন্ত্রণাদায়ক জীবন যাপন থেকে মুক্তির জন্য জেলা প্রশাসকের নিকট সুবিচার ও নির্দেশনা প্রার্থনা করেছেন। অন্যথায় পরিবারের সকল সদস্যের সহজ মৃত্যু দিতে জেলা প্রশাসকের নিকট অনুরোধ জানিয়েছেন।