দশ কিলোমিটার তাড়িয়ে ৫ গরু চোর ধরলো পুলিশ

0
33

শ্যামল দত্ত, চৌগাছা

যশোরের চৌগাছায় এবার প্রায় দশ কিলোমিটার তাড়া করে সিনেমা স্টাইলে পাঁচ গরু চোরকে গ্রেপ্তার করেছে চৌগাছা থানা ও দশপাকিয়া ফাঁড়ির পুলিশ। এসময় চুরির কাজে ব্যবহৃত একটি ছয় চাকার ট্রাক জব্দ করা হয়।

বুধবার মধ্য ও ভোর রাতে তাঁদের উপজেলার বুড়িন্দিয়া ও রঘুনাথপুর গ্রাম থেকে তাঁদের আটক করা হয়।

গ্রেপ্তার চোররা হলো চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার সিএবি কেদারগঞ্জ গ্রামের বাদল (৩৫), দৌলতদিয়া বঙ্গজপাড়া গ্রামের হাসিব (২৫), চুয়াডাঙ্গার জীবননগর টিএন্ডটি পাড়ার মিলন হোসেন (২৫), দর্শনার পারকৃষ্ণপুরের ওলিউল্লাহ (৩৫) এবং ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার গুড়দহ গ্রামের রাতুল হাসান (২০)।

চৌগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুল ইসলাম সবুজ বলেন, বুধবার গভীর রাতে চোরেরা ঝিকরগাছা উপজেলার অমৃতবাজারে গরু চুরির উদ্দেশ্যে যায়। চুরির বিষয়টি বুঝতে পেরে ২০০ থেকে ২৫০ গ্রামবাসী চোরদের ঘিরে ফেলে। এসময় চোরেরা তাদের ব্যবহৃত ট্রাক সাতক্ষীরা ট-১১-০২৪৬ ট্রাকে চড়ে গ্রামবাসীদের মধ্যদিয়ে বেপরোয়া ভাবে চালিয়ে চৌগাছা-ঝিকরগাছা সড়ক ধরে চৌগাছার দিকে পালানোর চেষ্টা করে। পালানোর পথে চৌগাছার দশপাকিয়া ফাঁড়ির উপ-পিরদর্শক নূর উন নবীর নেতৃত্বে পুলিশ চৌগাছা-ঝিকরগাছা সড়কের পলুয়া বাজারে তাঁদের আটকানোর চেষ্টা করে। সেখানেও তাঁরা বেপরোয়াভাবে ট্রাক চালিয়ে উপজেলার বুড়িন্দিয়া গ্রামের পাকা রাস্তা ধরে পালানোর চেষ্টা করে। পরে পুলিশ তাঁদের পেছন থেকে তাড়া করে এবং কৌশলে স্থানীয়দের দিয়ে সড়কের উপর বেঞ্চ ও গাছের গুড়ি ফেলে আটকানোর চেষ্টা করলে চোরেরা বেঞ্চ ও গাছের উপর দিয়ে ট্রাক চালিয়ে পালানোর চেষ্টাকালে একটি ঘরের উপর দিয়ে চালিয়ে দুর্ঘটনা ঘটিয়ে ট্রাক ফেলে পালানোর চেষ্টা করে।

এসময় স্থানীয়দের সহায়তায় দুর্ঘটনায় আহত চোর ট্রাক চালক বাদল ও চোর হাসিবকে আটক করলেও অন্য চার চোর পালিয়ে যায়। আহত বাদল ও হাসিবকে পুলিশ রাত সাড়ে চারটার দিকে চৌগাছা উপজেলা হাসপাতালে পুলিশ প্রহরায় ভর্তি করে। একইসাথে পুলিশ তাড়া করে বুধবার সকালে বুড়িন্দিয়া ও পাশর্^বর্তী রঘুনাথপুর গ্রামের মাঠের মধ্য থেকে স্থানীয়দের সহায়তায় অন্য তিন চোর মিলন, ওলিউল্লাহ ও রাতুল হাসানকে আটক করে দশপাকিয়া পুলিশ ফাঁড়িতে নেয়। পরে চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে তাঁদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়।

পরে দুপুর একটার দিকে ঝিকরাগাছা থানার উপ-পরিদর্শক নজরুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশ চোরদের তাদের হেফাজতে নিয়ে যশোর আদালতে পাঠান।

চৌগাছা থানার ওসি সাইফুল ইসলাম সবুজ বলেন, আটকদের বিরুদ্ধে ঝিকরগাছা থানায় মামলা হয়েছে। সে মামলায় তাঁদের গ্রেপ্তার দেখিয়ে যশোর আদালতে পাঠানো হয়েছে।