তিনমাসেও সন্ধান মেলেনি দুই সন্তানের জননী তানজিলা বেগমের

0
55

এস এম মুস্তাইন, বসুন্দিয়া

তিনমাস অতিবাহিত হয়ে গেলেও আজও সন্ধান মেলেনি বাঘারপাড়া উপজেলার জামদিয়া ইউনিয়নের নিত্যানন্দপুর গ্রামের নাজমুল ইসলামের স্ত্রী দুই সন্তানের জননী।

গত ১৪ সেপ্টেম্বর বুধবার সকাল বেলায় স্বামীর বাড়ি থেকে বাপের বাড়ি যাওয়ার কথা বলে দুই সন্তান ফেলে রেখে উধাও হয়ে যায় তানজিলা বেগম (২৮) নামের এক গৃহিণী।

২০১০ সালে নিত্যানন্দপুর গ্রামের মোঃ হোসেন মোল্যার ছেলে নাজমুল ইসলামের সাথে মনিরামপুরের সুন্দলপুর গ্রামের সাত্তার বিশ্বাসের ছোট মেয়ে তানজিলা বেগম এর সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়। বিয়ের ১১ বছরে দুই সন্তানের জনক জননী হয়েছিলেন তারা। স্বামী দিন মজুরির কাজ করেন। তাদের দুই সন্তানের বড় মেয়ে মুসলিমা খাতুন জান্নাতি (৮) আর ছোট ছেলে নাঈম হোসেন (৩)। ঝগড়া বিবাদ তেমন কিছু তাদের মধ্যে ছিল না। একপর্যায় সুখে শান্তিতে দিন যাপন করে আসছিল তারা। কোন কারনে স্বামীর গৃহ ছেড়েছে তারও কোন হদিস কারর জানা নেই বলে আশপাশের বাড়ির লোকজন জানান।

নাজমুলে মা বাবা বলেন, স্বামী সন্তান ফেলে গত ১৪ সেপ্টেম্বর সকালে তানজিলা মনিরামপুরে বাপের বাড়ি যাওয়ার কথা বলে চলে যায় আর ফিরে আসেনি বাড়িতে। শশুর শাশুড়ি আত্মীয় স্বজনদের বাড়িতেও খোঁজ-খবর নিয়ে কোথাও কোন সংবাদ মেলেনি। যাওয়ার সপ্তাহ খানেক পর বাঘারপাড়া থানায় একটি অভিযোগ দেওয়া হলেও তাতে কোন ফল আসেনি।

তিনমাস অতিবাহিত হয়ে গেলেও আজও তার সন্ধান দিতে পারেনি প্রশাসন। এখন ছোট ছোট দুই শিশু বাচ্চাদের নিয়ে অতিকষ্টে জীবন যাপন করছে নাজমুল ইসলাম ও তার পরিবার। এখন সকলের কাছে আকুল বিনয়ের সাথে যদি কোনো স্ব-হৃদয়বান ব্যক্তি কোথাও দেখতে পান বা সন্ধান মেলে তাহলে জরুরি ভাবে ০১৯৯১-৮৭১৩৯৬, ০১৯১৪-৬৩৩৬৪৫, ০১৯৯৪-৫২৫৯২৫ এই নাম্বারে যোগাযোগ করবেন। তানজিলা বেগমের উচ্চতা ৫’-২”, বয়স আনুমানিক ২৮ বছর, যাওয়ার সময় বগুনী রং এর বোরকা ছিল, তার গায়ের রং শ্যাম বর্ণের।

এ বিষয়ে বাঘারপাড়া থানাতে যোগাযোগ করলে জানান, প্রশাসন চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।