আগামীকাল বাঘারপাড়ায় ইউপি নির্বাচন

0
26

প্রদীপ বিশ্বাস, বাঘারপাড়া

আগামীকাল রোববার বাঘারপাড়ায় তৃতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। উপজেলার ৯টি ইউনিয়নে সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত বিরতিহীন ভাবে ভোটগ্রহণ চলবে। নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ও তাদের বিদ্রোহী, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ, জাকের পার্টি, বিএনপি ও জামায়াতের প্রার্থীরা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

আইন শৃঙ্খলা পরিপন্থি নানা ঘটনার কারণে উপজেলার ২০ টি কেন্দ্রকে ঝুঁকিপূর্ণ বিবেচণা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছে প্রশাসন। নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে গেছে নির্বাচনী এলাকা।

নির্বাচন অফিসারের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ৯ ইউনিয়নে নির্বাচন হবে ৮১টি কেন্দ্রে। এর মধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ ও গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্র রয়েছে ২০ টি। সাধারণ কেন্দ্র রয়েছে ৬১ টি। মোট ভোটকক্ষের সংখ্যা ৪৮৫টি। ভোটার রয়েছেন পুরুষ ৮৫ হাজার ৪২৭ ও মহিলা ৮৩ হাজার ৫শ’১৫ জনসহ ১ লাখ ৬৮ হাজার ৯শ’৪২ জন।

নির্বাচনের জন্য ৮১ জন প্রিজাইডিং অফিসার, ৪শ’৮৫ জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ও ৯শ’৭০ জন পোলিং অফিসার নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। তবে প্রথমবারের মতো এবার রায়পুর ইউনিয়নে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ হবে। অন্য ৮ ইউনিয়নে ব্যালটের মাধ্যমে ভোট গ্রহণ হবে।

থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচনে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে মাঠে নেমেছে বিজিবি, র‌্যাব, পুলিশ ও আনসার বাহিনীর সদস্যরা। ৮১ টি ভোট কেন্দ্রে দ্বায়িত্ব পালন করবেন ৬শ’৩৪ জন পুলিশ, ১ হাজার ৩শ’৭৭ জন আনসার। এছাড়া পুলিশের ১৮ টি মোবাইল টিম, ৩ প্লাটুন বিজিবি, র‌্যাবের ২ টি মোবাইল টিম ও ১ টি ষ্ট্রাইকিং ফোর্স নিয়োজিত থাকবে। দায়িত্বপ্রান্ত নির্বাচনী এলাকায় ৩ জন জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ও ৫ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আদালত পরিচালনা করবেন।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ওয়াহিদা আফরোজ জানিয়েছেন, সুষ্ঠু, অবাধ নিরপেক্ষ নির্বাচন উপহার দিতে প্রশাসন প্রস্তুত রয়েছে। নির্বাচনী সকল কার্যক্রম শেষ হয়েছে। আইন শৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, বিজিবি, পুলিশ, আনসারসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা মাঠে থাকবে।

তিনি আরো বলেন, শনিবার সকল কেন্দ্রে নির্বাচনী সরঞ্জাম পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। ভোটের দিন সকালেই সব কেন্দ্রে ব্যালট পেপার পৌছানো হবে। প্রথমবারের মতো রায়পুর ইউনিয়নে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ হতে যাচ্ছে।

বাঘারপাড়া থানার ওসি ফিরোজ উদ্দীন জানিয়েছেন, নির্বাচনে আইন শৃঙ্খলা স্বাভাবিক ও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা সর্বক্ষণ কাজ করছে। নির্বিঘ্নে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটাররা ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবেন। সুষ্ঠু, অবাধ, নিরপেক্ষ নির্বাচন উপহার দিতে প্রস্তুত রয়েছে প্রশাসন।