মানবতার ফেরিওলা সহানুভূতি

0
22

তালা প্রতিনিধি:

“মানুষ মানুষের জন্য জীবন জীবনের জন্য একটু সহানুভূতি কি মানুষ পেতে পারে না…ও বন্ধু।।

সমাজের কিছু মানুষ এখনো মানবতার ফেরিওলা রয়েছে যারা বিপদে নিজের সবটুকু দিয়ে মানুষের পাশে দাঁড়ায়, সাহায্য-সহানুভূতির মাঝে অসহায়, দুঃস্থ মানুষের পাশে সমাজের অনেকেই দাঁড়ায় বিশেষ করে ভয়াবহ কোভিড-১৯ (করোনা ভাইরাস) সংক্রমণের সংকট কালীন সময়ে কেউ নীরবে আবার কেউ প্রকাশ্যে সহযোগিতা করেছে অসহায়, দুঃস্থ, প্রতিবন্ধী, কর্মহীন, ঘরবন্দী মানুষদের। শুধু করোনা নয়, রাস্তায় ও বাজারে ঘুরে বেড়ানো ভবঘুরে মানুষদের সরকারি আশ্রয় কেন্দ্রে ও তার বাড়ির ঠিকানা খুঁজে বাড়ি পৌছানো, অসুস্থদের চিকিৎসা সেবা, অনাথ বাচ্চাদের ভরণপোষণসহ আশ্রয় প্রদান, প্রত্যন্ত অঞ্চলে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প পরিচালনা, প্রাকৃতিক দুর্যোগে ও মহামারিতেও দৃষ্টান্তমূলক ভূমিকা রেখে চলেছে সহানুভূতি নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। হাঁটি হাঁটি পা পা করে সংগঠনটি আজ দুই বছরে পা দিয়েছে। অল্প দিনেই এলাকার মানুষের মনে স্থান করে নিয়েছে সহানুভূতি এবং এর প্রতিষ্ঠাতা সাদা মনের মানুষ আব্দুল আলিম মোড়ল।

মানুষের বহুমুখী সেবা প্রদান করার লক্ষ্যে ২০১৯ সালের ২২ নভেম্বর তালা উপজেলার বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষের সমন্বয়ে তালা সদর ইউনিয়নের বারুইহাটি গ্রামের মৃতঃ আব্দুল করিম মোড়লের পুত্র মোঃ আব্দুল আলিম মোড়ল প্রতিষ্ঠা করেন অ-লাভজনক, অ-রাজনৈতিক স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন ‘সহানুভূতি’। জাতি, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে গড়ে তোলা প্রতিষ্ঠানটি ইতিমধ্যে তালা উপজেলায় প্রতিটি ইউনিয়নের অধিকাংশ মানুষের মনের মনিকোঠায় স্থান করে নিয়েছে।সহানুভূতির অন্যতম সদস্য বেলাল হোসেন জানান, দুই বছরে পা রাখলো স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সহানুভূতি। সংগঠনটির স্বেচ্ছাসেবকরা প্রতিটি গ্রামে অসহায় ও মুমূর্ষু ব্যক্তির জন্য তাৎক্ষণিক সেবা প্রদান করে থাকে।

তারা দিন-রাত ঝড়-বৃষ্টির মধ্যেও সর্বদা প্রস্তুত থাকে। তাদের একটি হট লাইন নম্বর ২৪ ঘন্টা খোলা থাকে। যে নম্বরটিতে জরুরী প্রয়োজনে ফোন আসলেই ছুটে যান স্বেচ্ছাসেবকরা। বিশেষ করে রাস্তায় ও বাজারে ঘুরে বেড়ানো ভবঘুরে মানুষদের সরকারি আশ্রয় কেন্দ্রে ও তার বাড়ির ঠিকানা খুঁজে বাড়ি পৌছানো, অসুস্থদের চিকিৎসা সেবা, অনাথ বাচ্চাদের ভরণপোষণসহ আশ্রয় প্রদান, প্রত্যন্ত অঞ্চলে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প পরিচালনা, প্রাকৃতিক দুর্যোগে ও মহামারিতেও দৃষ্টান্তমূলক ভূমিকা রেখে চলেছে সহানুভূতি।

আবু সাইদ নিকারী, মোঃ শামছুর রহমান, হৈমন্তী, মনির হাসান ভূইয়া, ফেরদৌসী আক্তার, ফারহানা যুথীসহ অনেকেই সহানুভূতির সেবা প্রাপ্তির কথা বলতে গিয়ে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন। তারা বলেন, সহানুভূতির আব্দুল আলিমসহ স্বেচ্ছাসেবকরা সমস্যা শোনামাত্রই সাহায্যের হাত বাড়িয়েছে এবং এখনও অব্যাহত রেখেছে।সহানুভূতির প্রতিষ্ঠাতা মোঃ আব্দুল আলিম মোড়ল জানান, ‘সৃষ্টির সেবার মাঝে ¯্রষ্ঠাকে খুঁজি’ এই স্লোগানকে সামনে নিয়ে নিজের বিবেক তাড়িত হয়ে ২০১৯ সালের ২২ নভেম্বর প্রতিষ্ঠিত হয় স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সহানুভূতি। সংগঠনের আওতায় দু’শতাধিক স্বেচ্ছাসেবক এ মহতী কাজ করে চলেছেন। ইতিমধ্যে প্রায় ১২০০ অসহায় মানুষকে বিভিন্ন ধরণের সেবা প্রদান করা হয়েছে। উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নে গঠন করা হয়েছে ১৭ সদস্য বিশিষ্ট সহানুভূতির শাখা কমিটি। বিশেষ করে ভয়াবহ করোনা ভাইরাস সংক্রমণের সংকট কালীন সময়ের শুরু থেকে অসহায়, দুঃস্থ, কর্মহীন, শিশু, প্রতিবন্ধী এবং ঘরবন্দী মানুষের পাশে দাঁড়ানো, কখনো নিজের উদ্যোগে পিপিই, মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইরাজার, নগদ টাকা, শিশু খাদ্য, রান্না করা খাবার, চাল, আটা, আলু’র মতো খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেছেন তিনি।

এ সকল কার্যক্রমে স্থানীয় প্রশাসন, জনপ্রতিনিধি, বেসরকারি সংস্থা ও এলাকাবাসী তাদেরকে সহযোগিতা করে আসছেন। বিশেষ করে উত্তরণের সহায়তায় কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীদের ফ্রি অক্সিজেন ও এ্যাম্বুলেন্স সেবা প্রদান কার্যক্রমে ব্যাপক ভূমিকা রেখেছে সংগঠনটি। এসব কার্যক্রমে উন্নয়ন প্রচেষ্টাও তাদেরকে সহযোগিতা করে আসছে। এই সেবা দ্বারা মহৎ মানুষের আতœার শুদ্ধি, তৃপ্তি লাভ, এহকাল ও পরকালের বিজয় হওয়ার প্রত্যয় নিয়ে দিন-রাত ছুটে চলেছেন সহানুভূতির কর্মীরা। ‘সহানুভূতি তালা’ নামের ফেসবুক আইডি থেকে প্রতিদিনের কর্মকান্ড তুলে ধরা হয়ে থাকে। তালা উপজেলার বাইরেও উক্ত কার্যক্রম চলমান রয়েছে।তিনি আরও বলেন, সহানুভূতি সরকারি অনুমোদনের জন্য প্রক্রিয়া চলছে। অনুমোদন পেলে সেবাগুলো আরো গতিশীল হবে।

এ সময় তিনি যতদিন বেঁচে থাকবেন ততদিন পর্যন্ত অসহায় মানুষের সেবায় নিজেকে উজাড় করে দেয়ার পাশাপাশি সাধ্য অনুযায়ী তাদেরকে সাহায্য-সহযোগিতা করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন।এ বিষয়ে তালা উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রশান্ত কুমার বিশ^াস বলেন, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সহানুভূতি এলাকার অসহায় মানুষের পাশে থেকে বিভিন্নভাবে সেবা প্রদান করে আসছে। তিনি সুনামের সাথে এগিয়ে চলা উক্ত সংগঠনের সাফল্য কামনা করেন।