পাকিস্তানে ধর্ষকের ‘কঠিন সাজা’

0
11

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

পাকিস্তানে ধর্ষণ রোধে নতুন আইন পাস করেছে দেশটির সরকার। নতুন আইনে একাধিক ধর্ষকের ক্ষেত্রে দোষী সাব্যস্ত আসামিকে খোজা করে দেওয়ার প্রস্তাব রাখা হয়েছে। এ সংক্রান্ত একটি বিল পাকিস্তানের সংসদে পাস হয়েছে। ধর্ষকের বিচার যেন দ্রুত কার্যকর হয় সেটিও গত বুধবার পাস হওয়া আইনটিতে রাখা হয়েছে। খবর ডন

খবরে বলা হয়, সম্প্রতি দেশটিতে নারী ও শিশু ধর্ষণের ঘটনা বেড়েছে। এমন অপরাধ দমনে সরকারের প্রতি জনগণ কঠিন সাজার দাবি করে। এ পরিপ্রেক্ষিতে সরকার এ পদক্ষেপ নিয়েছে। পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট আরিফ আলভি এক বছর আগে ধর্ষণবিরোধী নতুন অধ্যাদেশ জারি করেছিলেন এবং সেই সময় পাকিস্তানের মন্ত্রিসভা এই বিলটির অনুমোদনও দিয়েছিল। অধ্যাদেশে ধর্ষকের রাসায়নিক খোজাকরণের বিধান এবং বিচার দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য বিশেষ আদালত স্থাপনের পরামর্শ দিয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট। সেই অধ্যাদেশ জারির এক বছর পর বুধবার পাকিস্তানের সংসদের যৌথ অধিবেশনে ফৌজদারি আইন (সংশোধনী) বিল ২০২১-সহ আরও ৩৩টি বিল পাস হয়েছে।

সংবাদমাধ্যম ডন বলছে, সংসদে পাকিস্তান দন্ডবিধি ১৮৬০ এবং ফৌজদারি কার্যবিধি ১৮৯৮ সংশোধনের প্রস্তাবও উঠেছে। অন্যদিকে এই বিলের বিরোধিতা করছে কিছু দল। এটিকে ইসলাম সম্মত নয় বলে সিনেটে বিরোধিতা করেছেন জামায়াত-ই-ইসলামির সিনেটর মুশতাক আহমেদ। তার কথায়, ধর্ষককে প্রকাশ্যে ফাঁসি দেওয়া উচিত। শরিয়তে খোজাকরণের কোনো বিধান উল্লেখ নেই।