শালিসের নামে এক গৃহবধূর দেনমোহরের টাকা হাতিয়ে নেয়ায় এসপি বরাবর অভিযোগ

0
75

সত্যপাঠ রিপোর্ট

যশোরে স্বামীর অত্যাচারে থেকে রক্ষা পেতে স্থানীয়দের স্বরণাপন্ন্য হয়েছিলেন এক গৃহবধু। শালিসের মাধ্যমে বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। দেনমোহরের ৪৫ হাজার টাকা স্বামী দেন। কিন্তু সেই টাকা গৃহবধুকে না দিয়ে শালিসে অংশনেয়া স্থানীয় কয়েকজন হাতিয়ে নিয়েছেন বলে গুরুতর অভিযোগ উঠেছে।

ঘটনাটি ঘটেছে যশোর সদর উপজেলার তালবাড়িয়ার মালিয়াট গ্রামে। এঘটনায় রোববার ভূক্তভোগি গৃহবধু বাঘারপাড়া উপজেলার দশপাকিয়া গ্রামের মোয়ায়েন মোল্লার মেয়ে পাপিয়া খাতুন যশোরের পুলিশ সুপার বরাবর লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

অভিযুক্ত করা হয়েছে মালিয়াট গ্রামের কোমর উদ্দীনের ছেলে রাকিব হোসেন উজ্জল ও তালবড়িয়া গ্রামের ইজাহারের ছেলে টিপু সুলতানকে।

অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেন, কুতুবপুর গ্রামের রাজ্জাকের ছেলে জনির সাথে বিয়ে হয়। বিয়ের পর পাপিয়াকে যৌতুকের দাবিতে মারপিট শুরু করে জনি। এসব বিষয়ে এলাকার মানুষের কাছে জানালে গত ২৫ অক্টোবর শালিসের মাধ্যমে জনির সাথে বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। এসময় দেনমোহর ও আংটি বাবদ জনি পাপিয়াকে ৪৫ হাজার টাকা দেয়। সেই সময় ওই টাকা উজ্জল ও টিপু নেয়। পরে ওই টাকা ফেরত চাইলে আজ না কাল দেব বলে ঘুরাইতে থাকে।

স্থানীয়দের কাছে বিষয়টি জানিয়েও কোনো লাভ না পেয়ে বাধ্যহয়ে পাপিয়া প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

অভিযোগে আরও উল্লেখ করা হয়, এছাড়া সালিসে অংশ নেয়ার জন্য আগে থেকে আরও চার হাজার টাকা উজ্জল ও টিপু। উজ্জল ও টিপু টাকা ফেরত দুরের কথা এ বিষয়ে বাড়াবাড়ি করলে নানা ধরণের হুমকি ধামকি দিচ্ছেন। এমতাবস্থায় নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছেন পাপিয়া। তিনি দ্রুত বিষয়টি নিয়ে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।