নানা কর্মসূচীর মধ্যে দিয়ে কেশবপুরে কমিউনিটি পুলিশিং ডে পালিত

0
67

কেশবপুর প্রতিনিধি

‘মুজিববর্ষে পুলিশ নীতি, জনসেবা আর সম্প্রীতি’ এই প্রতিপাদ্যকে সামনে নিয়ে নানা কর্মসূচীর মধ্যে দিয়ে কমিউনিটি পুলিশিং ডে-২০২১ পালিত হয়েছে। কেশবপুর থানা কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের আয়োজনে নানা কর্মসূচীর মধ্যে কেক কাটা, র্যা লি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
শনিবার সকালে অনুষ্ঠানের শুরুতেই কবুতর উড়িয়ে উদ্ভোধনের মাধ্যমে থানা চত্বর থেকে একটি বর্ণাঢ্য র্যা লি বের করে পৌর শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে থানা চত্তরে আলোচনা সভায় মিলিত হয়।

উক্ত আলোচনা সভায় কেশবপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ বোরহান সভাপতিত্ব করেন।

কেশবপুর থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক হাসান মাহমুদের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এস এম রুহুল আমীন।
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কেশবপুর পৌরসভার মেয়র রফিকুল ইসলাম মোড়ল, উপজেলা সহকারী (ভূমি) মোহাম্মদ আরিফুজ্জামান।

আরও বক্তব্য রাখেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি তপন কুমার ঘোষ মন্টু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক গৌতম রায়, ন্যাশনাল প্রেস সোসাইটি, গণমাধ্যম ও মানবাধিকার সংস্থা উপজেলা শাখার সভাপতি শামীম আখতার মুকুল, কেশবপুর উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি এস আর সাঈদ, সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কবীর হোসেন, সারুটিয়া মহিলা দাখিল মাদ্রাসার সুপার আব্দুল হালিম প্রমূখ।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, কমিউনিটি পুলিশিং এর কার্যক্রমকে আরো বেগবান ও গতিশীল বৃদ্ধির লক্ষ্যে প্রতি বছর কমিউনিটি পুলিশিং ডে পালিত হয়ে আসছে। কমিউনিটি পুলিশ ও সাধারণ জনগণের সমন্বয়ে পুলিশের সাথে জনগণের সম্পৃক্ততা বৃদ্ধিতে কমিউনিটি পুলিশিং বিশেষ ভূমিকা পালন করে চলেছে। আগে পুলিশ সম্পর্কে জনমনে এক প্রকার ভয়-ভীতির ধারণা ছিল, যা কমিউনিটি পুলিশিংয়ের মাধ্যমে এখন অনেকটা কমিয়ে আনা সম্ভব হয়েছে। এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত রেখে কেশবপুর উপজেলায় কমিউনিটি পুলিশিং এর কার্যক্রমকে আরো তরান্বিত ও উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে প্রতিটি কমিউনিটি পুলিশিং অফিসার ও সদস্যদের সাধারণ মানুষের সাথে মিশে কাজ করতে হবে।

এ উপজেলায় কার্যকরী বিট পুলিশিং এর মাধ্যমে পুলিশ ও জনতার মাঝে দূরত্ব কমিয়ে জনবান্ধব পুলিশ হয়ে জনগণের সম্পর্ক উন্নয়নের মাধ্যমে বিভিন্ন সামাজিক অপরাধ- ধর্ষণ, নারী ও শিশু নির্যাতন, জঙ্গি, মাদক, এসিড নিক্ষেপ, শিশু অপহরণ, নারী ও শিশু পাচার, বাল্য বিবাহ, ইভটিজিং এবং সন্ত্রাস দমন ও প্রতিরোধে গণসচেতনতা বৃদ্ধির ওপর গুরুত্বারোপ করতে বলা হয়েছে। বিশেষ করে সমাজ থেকে মাদক নির্মূল, সহিংসতা প্রতিরোধ, স্থানীয় পর্যায়ে পারিবারিক সহিংসতা প্রতিরোধ, নারী ও শিশু নির্যাতন প্রতিরোধে আইন প্রয়োগের পাশাপাশি সামাজিক সচেতনতা, কিশোর-তরুণ সন্তানদের বিষয়ে অভিভাবকদের সচেতন করা, কর্মজীবী নারী ও স্কুল-কলেজগামী ছাত্রীদের গমনাগমনের পথে ইভটিজিং প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়াসহ নানা বিষয়ে গুরুত্ব দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। সমাজে যেকোন ধরণের অপরাধের বিষয়ে কমিউনিটি পুলিশিংয়ের সদস্যদের তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করার জন্য জনসাধারণের কাছে আহবান করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, কেশবপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) শিকদার মতিয়ার রহমান, উপ-পুলিশ পরিদর্শক পিন্টু লাল দাস, অরুপ কুমার বসু, আবু বাক্কার, লিখন সরকার, মিজানুর রহমান, আজিজুর রহমান. অনিমেষ সরকার, সহকারী উপ-পরিদর্শক নজরুল ইসলাম, ফিরোজ হোসেন, মনিরু্জ্জামান, মুক্তার হোসেন, সমরেশ দত্ত, তরিকুল ইসলাম উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী রাবেয়া ইকবালসহ থানা পুলিশের সকল স্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারিগণ, জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী, ব্যবসায়ী ও সাংবাদিকবৃন্দসহ বিভিন্ন শ্রেনী-পেশার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গরা।