দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ, চালক নিহত আহত ৪

0
32

প্রদীপ বিশ্বাস, বাঘারপাড়া

যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার জামদিয়া এলাকায় খুলনা-কালনা সড়কে দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে বাসচালক নিহত হয়েছেন। এ সময় আরও ৪ জন যাত্রী আহত হয়েছেন।
নিহত বাস চালকের নাম মনির হোসেন (৪৫)। তিনি নড়াইলের নড়াগাতি থানার বড়দিয়া মহাজন গ্রামের বাসিন্দা। বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) চিকিৎসাধীন অবস্থায় বিকেল তিনটায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

আহত যাত্রীরা হলেন, যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলার চাড়াভিটা গ্রামের মহর আলীর ছেলে রফিকুল ইসলাম, একই উপজেলার নারিকেলবাড়িয়া গ্রামের আলতাফ মোল্যার ছেলে জুয়েল হোসেন, অভয়নগর উপজেলার নওয়াপাড়া গ্রামের বাসিন্দা মনির আলী ও নড়াইল সদরের মুলিয়া মাধ্যমিক বিদ্যলয়ের শিক্ষক প্রভাকর সরকার।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, সকাল সাড়ে নয়টায় খুলনা থেকে যাত্রীবাহী একটি বাস (যশোর-ব-১১-০১৩৫) নড়াইলের কালনার উদ্দেশ্যে যাচ্ছিলো। অপরদিকে যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলা চাড়াভিটা বাজার থেকে খুলনার উদ্দেশ্যে তাজ আনন্দ কোম্পানীর একটি যাত্রীবিহীন বাস (ঢাকা মেট্রো-ব-১১-৫৯৩৩) খুলনার দিকে আসছিলো। বাস দুটি বাঘারপাড়ার জামদিয়া এলাকায় পৌঁছালে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে দুই বাসের সামনের অংশ দুমড়ে মুচড়ে যায়। এ সময় যাত্রীবাহী বাসের চালকসহ ৪ জন যাত্রী আহত হন।

খবর পেয়ে বাঘারপাড়া থানা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়। উন্নত চিকিৎসার জন্য আহতদের মধ্যে বাস চালক মনির হোসেনকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও বাস যাত্রী মনির আলীকে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বাকিদের বাঘারপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।

ঘটনাস্থল থেকে বাঘারপাড়া থানার উপপরিদর্শক ইমরানুর কবীর জানান, দুর্ঘটনার পরপরই যাত্রীবিহীন বাসের চালক পালিয়ে গেছেন। তার এখনো পরিচয় পাওয়া যায়নি। বেলা ১২টার দিকে সড়ক থেকে বাস দুটি সরিয়ে পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। এরপর সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়। এ ঘটনায় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের প্রস্তুতি চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here