তালা প্রেসক্লাবে আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের সংবাদ সম্মেলন ভোটে জিতেও বাড়ি ছাড়া শত শত নেতা-কর্মী

0
19

তালা প্রতিনিধি

তালা সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ পক্ষ থেকে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) বেলা সাড়ে ১২ টায় তালা প্রেসক্লাবে তালা সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ শাহাবুদ্দীন বিশ্বস স্বাক্ষরিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন আওয়ামী লীগ নেতা সৈয়দ ঈদ্রিস।

সৈয়দ ঈদ্রিস লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, সম্প্রতি অনুষ্ঠিত তালা সদর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী তালা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি সরদার জাকির হোসেন একটি অবাধ সুষ্ঠ শান্তিপূর্ণ ও নিরপেক্ষ ভোটের মাধ্যমে ৭৬২ ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করে পুনরায় সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। কিন্তু নির্বাচনের পর থেকে তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী জাতীয় পার্টির সমর্থিত এসএম নজরুল ইসলাম ও তার কর্মী বাহিনী আওয়ামী নেতা-কর্মীদের মারপিট করে বাড়ি ছাড়া করেছে। একটি তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে লাঙ্গল প্রতিকের পরাজিত প্রার্থী এস এম নজরুল ইসলাম চক্রান্ত শুরু করেন দলীয় নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধ। উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, বর্তমান উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ও তালা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সরদার মশিয়ার রহমানসহ দলের ৪২ নেতা-কর্মীর নামে মিথ্যা ও হয়নারীমূলক মামলা দিয়ে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, শ্রমিকলীগ ও ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের বাড়িতে বাড়িতে পুলিশ তল্লাশী চালানোর নামে হয়রানি করছে।

নৌকা প্রতীক নিয়ে বিজয়ী হওয়ার পরও দলের শত শত নেতা-কর্মী পালিয়ে বেড়াচ্ছে। এমনকি নৌকা প্রতিক নিয়ে জয়ী হওয়া চেয়ারম্যান ও তার পরিবারের সদস্যরা গ্রেফতারের ভয়ে আত্মগোপনে আছেন। ইতিমধ্যে নৌকার দুই কর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। নজরুল বাহিনীর তান্ডব ও পুলিশী হয়রানীতে তারা অসহায় হয়ে পড়েছে।

তিনি বলেন, এসএম নজরুল ইসলামের অত্যাচারে এলাকার শত শত মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। ইতিমধ্যে ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তিবর্গ ও প্রশাসনের পক্ষ থেকে মোট ৩৯টি এজাহার,অভিযোগ এবং সাধারণ ডায়েরি তালা থানা ও বিজ্ঞ আদালতে দায়ের করেছে। এ সকল অভিযোগ এসএম নজরুল ইসলাম প্রভাব বিস্তার করে সে নিজেকে সব সময় আইনের উর্ধ্বে রাখতে সমর্থ হয়েছে। এতগুলো মামলা,জিডি ও অভিযোগ থাকার পরও আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে হামলা-মামলা করে বহাল তবিয়াতে ঘুরে বেড়াচ্ছেন তিনি। তার খুঁটির জোর নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

এদিকে নজরুল ইসলামের সন্ত্রাসী বাহিনী ভোটে পরাজিত হয়ে আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে রীতিমতো যুদ্ধে নেমেছে। আর ক্ষতাসীন দল আওয়ামী লীগ বিজয়ী হয়েও আজ দলের শত শত নেতা-কর্মী মিথ্যা মামলা ও হামলার শিকার হয়ে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে।

আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মীসহ স্থানীয় শ্রেণি-পেশার মানুষ সরকারের কাছে নজরুল ইসলামের বিরুদ্ধে ন্যায় বিচার প্রত্যাশা করে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে। আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মী ছাড়াও জাতীয় পার্টির সাবেক সভাপতি, নাগরিক কমিটির নেতৃবৃন্দ ও বীর মুক্তিযোদ্ধারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here