যশোরে বাসচাপায় নানি-নাতি নিহত

0
98

সত্যপাঠ রিপোর্ট

যশোর শহরের ধর্মতলা রেল ক্রসিংয়ে বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে নানী-নাতী নিহত হয়েছে। এ সময় দু’জন আহত হয়েছেন। ৯ সেপ্টেম্বর বৃহসপতিবার দুপুরে দূর্ঘটনাটি ঘটে। স্থানীয় লোকজন ঘাতক বাসটিকে থামালেও পালিয়ে গেছে চালক ও তার সহকারী।

নিহতরা হলেন যশোর সদর উপজেলার নরেন্দ্রপুর গ্রামের গফুর মোড়লের স্ত্রী জাহানারা বেগম (৬০) ও সিরাজসিংহা গ্রামের সুজায়েত সরদারের মেয়ে সুমাইয়া খাতুন (২২)। নিহতরা সম্পর্কে নানী-নাতী। এ ঘটনায় সিরাজসিংহা গ্রামের লিটন সরদারের মেয়ে তুলি (১২) ও ভ্যান চালক একই গ্রামের সাধন দাসের ছেলে উত্তম দাস আহত হয়েছেন। আহতদের যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

যশোর ট্রাফিক পুলিশের ইনচার্জ মাহবুব কবির সাংবাদিকদের জানান, চাঁচড়া থেকে ভ্যানে করে নাতনীদের নিয়ে নানী জাহানারা বেগম শহরে আসছিলেন। ভ্যানটি ধর্মতলা রেলক্রসিংয়ের খাদে পড়ে উল্টে যায়। এসময় দ্রুত গতিতে বেপরোয়া গতি সম্পন্ন একটি যাত্রীবাহী বাস উল্টে পড়া ভ্যান যাত্রীদের চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান নানী-নাতী।

স্থানীয়রা ভ্যানের চালক ও যাত্রীকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন।

এদিকে দূর্ঘটনার পর পরই সাতক্ষীরা থেকে আসা যাত্রীবাহী বাসটির চালক ও তার সহকারী পালিয়ে যায়। পরে বাসটি জব্দ করে যশোর পুলিশ লাইনে নিয়ে যান। নিহত ও আহতর ব্যাপারে কোতয়ালি মডেল থানায় মামলার প্রস্তুুতি চলছে।

যশোর ট্রাফিক পুলিশের ইনচার্জ মাহবুব কবির জানান, চাঁচড়া থেকে ভ্যানে করে নাতনিদের নিয়ে শহরে আসছিলেন জাহানারা বেগম। ভ্যানটি ধর্মতলা রেলক্রসিংয়ে উল্টে যায়। এ সময় সাতক্ষীরা থেকে আসা দ্রুত গতির একটি যাত্রীবাহী বাস তাদের চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান নানি-নাতি। স্থানীয়রা আহত দুজনকে উদ্ধার করে যশোর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here