আশাশুনির বুধহাটায় মুদি দোকানে আবারও চুরি

0
64

আশাশুনি প্রতিনিধি

আশাশুনি উপজেলার বুধহাটা বাজারের রাজা ষ্টোরে আবারও চুরির ঘটনা ঘটেছে। রবিবার দিবাগত রাতের কোন এক সময় এ চুরির ঘটনা ঘটে।

জানাগেছে, রবিবার রাত ১০টার দিকে প্রতিদিনের ন্যায় কুল্যা গ্রামের মৃত মতলেব সরদারের ছেলে রাজা সরদার তার মুদি দোকানের তালা বন্দ করে বাড়ি চলে যান। সকালে এসে তার রাজা ষ্টোর নামক দোকানের তালা খুলে দেখেন দোকানের চালের টিন কেটে কে বা কারা ড্রয়ারে রক্ষিত নগদ অর্থ, সিগারেট, মোবাইল রিচার্জ কার্ড ও মূল্যবান মালামাল চুরি করে নিয়ে গেছে। যার অনুমানিক মূল্য ৫০ থেকে ৬০ হাজার টাকা।

ভুক্তভোগী রাজা সরদার জানান, এইবার দিয়ে তার দোকানে চার বার চুরির ঘটনা ঘটেছে। বিগত দিনে চুরির ঘটনায় আজও পর্যন্ত কোন চোরকে শনাক্ত করতে ব্যর্থ হওয়ায় এ ঘটনাটি আর থানা পুলিশকে অবহিত করা হয়নি। তবে দোকানে রেখে যাওয়া চোরের হাতের ফিঙ্গার প্রিন্ট ও পায়ের জুতার ছাপ পরীক্ষায় পাঠানোর প্রস্তুতি নিচ্ছি।

রাতে বাজারের চুরির ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে বুধহাটা বাজার বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ফারুক ঢালী বলেন, এটা দুঃখ জনক ঘটনা। বাজারের নিরাপত্তা ব্যবস্থার কোন ঘাটতি ছিলো না। তবে এঘটনার সাথে জড়িতদের মুখোশ অতি দ্রুত উন্মোচন করা হবে।

কয়েকজন ব্যবসায়ী জানান, বাজারের মধ্যে বণিক সমিতির নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় নিরাপত্তা প্রহরী থাকলেও বন্দ হচ্ছে না চুরি। বিষয়টি নিয়ে আলোচনা সমালোচনার ঝড় উঠেছে বাজারের বিভিন্ন মহলে। বাজারের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে প্রতি মাসে দোকান প্রতি দিতে হয় ২৫০ টাকা অথবা নির্দিষ্ট রাতে নিজেদের দিতে হয় বাজার পাহারা।

এদিকে বুধহাটা বাজারসহ আশপাশের ইউনিয়নের মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বুধহাটা বাজারে স্থাপন করা হয়েছে পুলিশ ক্যাম্প (তদন্ত কেন্দ্র)। বাজারে এত নিরাপত্তা থাকা স্বত্বেও সংঘবদ্ধ চোরের দলের হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছেন না বাজারের দোকানীরা। ইতিপূর্বে বাজারের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বাজারের বিভিন্ন পয়েন্টে সিসি ক্যামেরা বসানো হলেও রক্ষণাবেক্ষনের অভাবে অকেজো হয়ে পড়ে আছে সে সকল ক্যামেরা ও যন্ত্রাংশ।

অন্যদিকে, রাতে বুধহাটা বাজারসহ আশপাশ এলাকায় সন্দেহজনক অসংখ্য মানুষ ঘোরাঘুরি করলেও তাদেরকে পুলিশি তল্লাশি ও জিজ্ঞাসাবাদ না করায় এমন ঘটনার জন্ম হয়েছে বলে ধারণা করছেন স্থানীয় সচেতন মহল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here