২০২০-২১ অর্থবছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধি কমে ৫.৪৭%

0
76

অর্থনীতি ডেস্ক

করোনা মহামারি প্রভাবে দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অনেক কমে গেছে। সাময়িক হিসাবে গেল ২০২০-২১ অর্থবছরে মোট দেশজ উৎপাদনে(জিডিপি) প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৫ দশমিক ৪৭ শতাংশ, সরকারের লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় যা অনেক কম।

অর্থ বছরের শুরুতে সরকার জিডিপি প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছিল ৮ দশমিক ২ শতাংশ। অর্থ বছরের শেষের দিকে এসে তা কমিয়ে ৬ দশমিক ১ শতাংশ ধরা হয়। শেষ পর্যন্ত সংশোধিত লক্ষ্যমাত্রাও অর্জিত হয়নি।

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস) বৃহস্পতিবার গত অর্থ বছরের জিডিপির সাময়িক হিসাব এবং এর আগের অর্থবছরের চূড়ান্ত হিসাব প্রকাশ করেছে।

এতে দেখা গেছে, করোনা সংক্রমনের প্রথম অর্থবছরে অর্থাৎ ২০১৯-২০ অর্থবছরে চুড়ান্ত হিসাবে জিডিপি প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৩ দশমিক ৫১ শতাংশ। ওই অর্থবছরে সাময়িক হিসাবে যা ছিল ৫ দশমিক ২৪ শতাংশ।

মহামারি শুরুর আগের তিনটি অর্থবছরে ৭ থেকে ৮ শতাংশ অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জন করে বাংলাদেশ।

দ্রুত বর্ধনশীল অর্থনীতি হিসেবে বিশ্বে বাংলাদেশ আলোচনায় আসে। করোনা সংক্রমনের প্রভাবে শুধু বাংলাদেশ নয়, দুই বছর ধরে বিশ্বের বেশিরভাগ দেশই প্রবৃদ্ধি অর্জনে পিছিয়ে পড়েছে। কোনো কোনো দেশে প্রবৃদ্ধি পরিবর্তে অর্থনীতিতে সংকোচন ঘটেছে।

এদিকে গত অর্থ বছরে বাংলাদেশের মানুষের গড় মাথাপিছু আয় বেড়েছে। ২০২০-২১ অর্থবছর শেষে মাথাপিছু আয় দাড়িয়েছে ২ হাজার ২২৭ ডলার। আর ২০১৯-২০ অর্থবছরে যা ছিলো ২ হাজার ২৪ ডলার। মাথাপিছু জিডিপি এক হাজার ৯৩০ ডলার থেকে বেড়ে হয়েছে ২ হাজার ৯৭ ডলার।

করোনার প্রভাবে যে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি বাধাগ্রস্থ হবে তা আগে থেকেই বলে আসছিল বিশ্বব্যাংক, আইএমএফ, এডিবিসহ দেশি-বিদেশি বিভিন্ন সংস্থা। এসব সংস্থা মনে করে, করোনার কারণে বিশ্বব্যাপি যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। এতে উৎপাদন ও সরবরাহ বাধাগ্রস্থ হয়।

বাংলাদেশে করোনা সংক্রমণ দেখা দেয় গত ২০২০ সালে মার্চে। ওই বছর ২৬ মার্চ থেকে টানা দুই মাসের বেশি সময় ছিল সাধারণ ছুটি। দোকানপাট, শপিংমল, পরিবহণ, পর্যটন, হোটেল রেস্তোরাঁ, শিক্ষা কার্যক্রমসহ বিভিন্ন খাতের কার্যক্রম বন্ধ ছিলো। এর ফলে আমদানি-রপ্তানি কমে গেছে। কমেছে রাজস্ব সংগ্রহ।

গত অর্থ বছরে উন্নয়ন কর্মকান্ডের অগ্রাধিকার ঠিক করে নিম্ন অগ্রাধিকারের কাজ সরকারই করেনি। সামগ্রিক পরিস্থিতিতে মানুষের ভোগব্যয় কমে যায়। কমেছে বেসরকারি খাতের বিনিয়োগ। এর প্রভাব পড়েছে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধিতে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here