বসুন্দিয়ায় ব্যবসায়ীর উপর হামলা ও ভাংচুরের ঘটনায় মামলা

0
70

বিশেষ প্রতিনিধি

যশোরে দিনদুপুরে ব্যবসায়ীর উপর হামলা, মারপিট, দোকান ভাংচুর, টাকা ও মোবাইলসহ দেড় লক্ষাধিক টাকার মালামাল ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। গত রোববার সকাল ১০টার দিকে সদর উপজেলার বসুন্দিয়া মোড়ে কাঠপট্টিতে এই ঘটনা ঘটে। ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী মাসুদ রানা চিকিৎসা শেষে এই ব্যাপারে চারজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরো ৮/১০জনের বিরুদ্ধে কোতোয়ালি মডেল থানায় অভিযোগ দিয়েছেন।

অভিযুক্তরা হলো, একই উপজেলার জয়ন্তা গ্রামের মৃত মোদাচ্ছের মোল্যার তিন ছেলে মোজাহার হোসেন, আজাহার হোসেন, আব্দুল্লাহ এবং মোসলেম উদ্দিনের ছেলে মনিরুল ইসলাম।

বাদী অভিযোগে উল্লেখ করেছেন, তিনি দীর্ঘদিন ধরে বসুন্দিয়া মোড় বাজারে কাঠের ব্যবসা করেন। আসামিদের সাথে বাদীর পারিবারিক বিষয় নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। সেকারণে আসামিরা বাদী ও তার পরিবারের লোকজনদের খুন ও গুম করাসহ বিভিন্ন ধরনের হুমকি দিয়ে আসছিল। তারই জের ধরে গত ৭ আগস্ট বিকেল ৫টার দিকে আসামি আজাহার হোসেনের ব্যবহৃত ০১৭১৪-৩৩৮৩৮৮ নম্বর থেকে বাদীর ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে রিং করে গুলি করে হত্যা করাসহ বিভিন্ন ধরনের হুমকি দেয়। এই ঘটনায় ব্যবসায়ী মাসুদ রানা ওইদিনই আজাহার হোসেনের বিরুদ্ধে কোতোয়ালি মডেল থানায় একটি অভিযোগ দেন।

থানায় অভিযোগের খবর জানতে পেরে ৮ আগস্ট সকাল ১০টার দিকে উল্লেখিত চারজন এবং আজিজুর রহমানসহ ১০/১৫জনের একদল সন্ত্রাসী বিভিন্ন ধরনের দেশিয় এবং বিদেশি অস্ত্রশস্ত্রসহ বাদীর ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে আসে। এসময় কিছু বুঝে ওঠার আগেই বাদীকে মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে তারা এলোপাতাড়িভাবে মারপিট শুরু করে। এরপর বাদীর ক্যাশ টেবিলের ড্রয়ারে থাকা কাঠ ক্রয়ের জন্য রাখা এক লাখ টাকা, এবং দুইটি মূল্যবান এড্রোয়েড মোবাইল ফোনসেট ছিনিয়ে নেয়। এসময় ব্যবসায়ী মাসুদ রানার চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে তারা আবারো হত্যার হুমকি দিয়ে চলে যায়। পরে মাসুদ রানাকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়ার পরে থানায় এই অভিযোগ দেয়া হয়।

ব্যবসায়ী মাসুদ রানা বলেছেন, এরপরও আসামিরা বিভিন্ন সময় স্বশস্ত্র অবস্থায় থেকে বসুন্দিয়া মোড় বাজারে এসে তাকে হত্যার হুমকি অব্যাহত রেখেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here