চৌগাছায় দূর্বৃত্ত হামলায় উপজেলা আ. লীগ নেতাসহ ২ জন আহত

0
89

চৌগাছা প্রতিনিধি

যশোরের চৌগাছায় বিএনপির সন্ত্রাসীদের হামলায় উপজেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী সদস্য আওরঙ্গজেব চুন্নু (৬০) এবং পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হারুন অর রশীদ (৩৫) গুরুতর আহত হয়েছেন। তাদের দু’ জনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। রোববার বিকাল তিনটার দিকে চৌগাছা-যশোর সড়কের সলুয়া ডিগ্রি কলেজের সামনে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

আহত আওরঙ্গজেব চুন্নু চৌগাছা সদর ইউনিয়নের মনমোতপুর এবং হারুন অর রশীদ পৌরসভার তারনিবাস গ্রামের বাসিন্দা।

আহত উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আওরঙ্গজেব চুন্নু জানান, আমার বড় ছেলে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সম্পাদক শামীম রেজাকে শনিবার (৭আগস্ট) উপজেলা আওয়ামী লীগের আরেক নির্বাহী সদস্য জসিম উদ্দিনের একটি সাজানো চাঁদাবাজি মামলায় গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

রোববার তাকে যশোর আদালতে পাঠানো হয়। আমরা আদালতে তাঁকে দেখতে যাই। সেখান থেকে একটি মাইক্রোবাসে করে বাড়ি ফেরার পথে চৌগাছা-যশোর সড়কের সলুয়া ডিগ্রি কলেজের সামনে পৌছলে আমাদের পিছনে আসতে থাকা জসিম উদ্দিনের মাইক্রোটি আমাদের গাড়ির সামনে আঁড় করে দেয়। তখন ওই মাইক্রো থেকে নেমে আমার ছেলের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি মামলার বাদি ও চৌগাছা শহরে জসিম উদ্দিনের ফুডল্যান্ড রেস্টুরেন্টের ব্যবস্থাপক আবুল কালাম আজাদ এবং তাঁর আরেক ভাই কামাল আমাদের গাড়ি থেকে বের করে নেয়ার চেষ্টা করে। এসময় ওই মাইক্রোর মধ্যে থেকে জসিম উদ্দিন বলেন, ‘নেতাকে বের করে নিয়ে আয়’।

এরপর তারা আমাদের দুজনকে গাড়ি থেকে বের করে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে জখম করে ফেলে রেখে যায়। ভয়ে কেউ আমাদের উদ্ধার করেনি। পরে যশোর থেকে চৌগাছার দিকে আসা যশোর হাসপাতালের একজন স্টাফ আমাদের উদ্ধার করে একটি ভ্যানে করে চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্্র নিয়ে আসেন।

চুন্নু জানান আমার দুই পা, দুই হাত ও পিঠে লোহার রড ও হাতুড়ি জাতীয় কিছু দিয়ে বেদম প্রহার করে তাঁরা। আমি দুই পা নাড়াতে পারছিনা। আমার হাত ও পা ভেঙে গেছে। হাসপাতালে দেখা যায় হারুন অর রশিদের ও হাত, পা ও পিঠে মারাত্মক জখমের চিহ্ন। তার হাত ও পায়ে ছিদ্র ছিদ্র হয়ে গেছে।

হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক তাজিন আহসান বলেন, তাদের মধ্যে বয়স্ক লোকটির অবস্থা বেশি খারাপ। দুজনকেই উন্নত চিকিৎসার জন্য যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। দুজনেরই শরীরে ভারী কিছু দিয়ে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তিনি জানান ভেঙে যেতে পারে তবে পরীক্ষা ছাড়া কিছু বলা যাচ্ছে না।

তাদের হাসপাতালে ভর্তির খবরে চৌগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুল ইসলাম সবুজ, পরিদর্শক (তদন্ত) গোলাম কিবরিয়াসহ পুলিশ কর্মকর্তারা তাৎক্ষণিক হাসপাতালে যান। সেখানে তারা আহতদের পরিবারকে আস্বস্ত করেন।

এ বিষয়ে ওসি সাইফুল ইসলাম সবুজ বলেন, অপরাধী যেই হোক ছাড় দেয়া হবে না। ঘটনার তদন্ত করে প্রকৃত অপরাধীদের গ্রেপ্তার করে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে। প্রকৃত অপরাধীদের গ্রেপ্তারে অভিযান শুর করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here