চলমান লকডাউনে দোকানপাট বন্ধ থাকায় অন-টাইম প্লাস্টিকের গ্লাসে বাজার গুলোতে রাস্তার দু’পাশে ময়লার স্তূপে পরিনত কতৃপক্ষের নজর নেই

0
39

এস, এম মুসতাইন, বসুন্দিয়া

সারা দেশে করোনার মহামারী পরিস্থিতিতে কঠোর লকডাউন চলাকালীন চা বিক্রেতারা হেটে হেট ফ্লাক্সে প্লাস্টিকের অন-টাইম গ্লাসে বিক্রি করছে, এতে বাজার গুলোতে রাস্তার দুপাশে ময়লায় পরিনত হয়ে পরিবেশ দুষিত হচ্ছে সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের নজরদারি নেই। এলাকা ঘুরে দেখা গেছে বসুন্দিয়া মোড় বাজার, বসুন্দিয়া বাজার, আলাদীপুর বাজার, মিনা বাজার, আফরা সিংগাপুর বাজার, বাররা বাজার, ভিটাবল্যা বাজার, ধলগার রাস্তার মোড়, বাকড়ী বাজার, দোগাছি মোড়, জয়রামপুর আইন বাজার, শান্তির বাজার, বাগডাঙ্গার স্কুলের পাশে, ঘুনির ঘাট বাজার গুলোতে ভয়াবহ করোনা মহামারীর কারণে সারা দেশে কঠোর লকডাউন চলাকালীন এক বেলা দোকানপাটে বেচাকেনা চলছে।

বেলা ১২ টার পর দোকানে বন্ধ থাকলেও পেটের দায়ে ছোট ছোট পান সিগারেট ও চা বিক্রেতারা ফ্লাক্সে “চা” অন-টাইম গ্লাস ও থলির ভিতর বিড়ি সিগারেট হাতে নিয়ে পায়ে হেটে হেটে বিক্রি করছে। চা পানকারীরা এসমস্ত প্লাস্টিকের গ্লাসে পান করে যত্রতত্র ভাবে রাস্তার পাশে, দোকানের সামনে ফেলছে।

যারফলে অধিকাংশ সড়ক, হাট বাজারের ছোট ছোট গলির দুপাশে ময়লার স্তূপে পরিনত। এসমস্ত প্লাস্টিকের গ্লাস সহজে নষ্ট না হওয়ার কারনে পরিবেশ দুষিত হয়ে পড়েছে। এমনকি চাষাবাদের জমিতে ও চলে যাচ্ছে। প্লাস্টিকের গ্লাস ভুষি ভূত বা ধ্বংস না হলে ফসলের উপর প্রভাব পড়ার আশংকা রয়েছে বলে অনেকে মনে করছেন। তা ছাড়াও নিষিদ্ধ পলিথিনেও বাজার ছেয়ে আছে। চা বিক্রির প্লাস্টিকের গ্লাসে চা পান করার পর নিদিষ্ট স্থানে ফেলার ব্যবস্থা সহ মানুষকে সচেতন করার প্রয়োজন।

এ অঞ্চলের বেশির ভাগ বাজারের রাস্তা, গলি গুলো পরিস্কার পরিছন্ন রাখার জন্য আলাদা কোন লোক জন না থাকাই জমে যাচ্ছে প্লাস্টিকের ময়লা। বসুন্দিয়া মোড় ও বসুন্দিয়া বাজারে নিদিষ্ট লোক রয়েছে প্রতিদিন পরিস্কার করার জন্য। বাকি বাজার গুলোতে দোকান মালিকগন নিজস্ব ভাবে পরিস্কার পরিছন্ন রাখার চেষ্টা করেন। কিন্তু লকডাউনের ফলে দোকানদার ব্যবসায়ীরা দুষচিন্তায়।

১২ টার পর ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে চলেগেলে বাজারে ঘুরতে আশা মানুষ পরিবেশ দুষিত করছে বলে ব্যবসায়ীদের অভিমত। এ বিষয়ে অবিলম্বে সাধারণ মানুষ সহ চা বিক্রেতাদের সচেতন করা ও বিধি ব্যবস্থা একান্ত প্রয়োজন সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here