যশোর সদরের পদ্মবিলায় দু’দফা সন্ত্রাসী হামলা, মামলা দায়ের

0
18

বিশেষ প্রতিনিধি

সদর উপজেলার পদ্মবিলা পূর্বপাড়া গ্রামে পূর্ব শত্রুতার কারনে প্রতিবেশী সন্ত্রাসীরা হামলা চালিয়ে মারপিট জখম লুটপাট ভাংচুর ক্ষতি সাধনসহ শ্লীলতাহানী ঘটানোর অভিযোগে মামলা হয়েছে। মামলায় আসামী করা হয়েছে, ওই গ্রামের ১১জনকে।

আসামীরা হচ্ছে, সদর উপজেলার পদ্মবিলা পূর্বপাড়া গ্রামের মাজেদ গাজীর ছেলে মনিরুল ইসলাম, মৃত শামসুদ্দিনের ছেলে সেলিম রেজা, মাজেদ গাজীর ছেলে জিয়াউর রহমান, ওমর গাজীর ছেলে রাজিব আহম্মেদ, মৃত জলিল গাজীর ছেলে মাজেদ গাজী, ওমর গাজী, মৃত নওশের আলীর ছেলে শরফুদ্দীন, জালাল উদ্দীন, বদর উদ্দীন, আলী পাটোয়ারীর ছেলে সাইফুল ইসলাম, জাহিদুল ইসলামের ছেলে নাঈম ইসলামসহ অজ্ঞাতনামা ৫/৬জন।

যশোর সদর উপজেলার পদ্মবিলা পূর্বপাড়া গ্রামের দেলোয়ার হোসেনের ছেলে তরিকুল ইসলাম লিটন বাদি হয়ে বুধবার দিবাগত গভীর রাতে কোতয়ালি মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় তিনি উল্লেখ করেন, গত ৩ জুলাই রাত ৮ টায় সদর উপজেলার পদ্মবিলা পূর্বপাড়া গ্রামের বাদির চাচাতো ভাই আলাউদ্দীন (৩৫) এর মুদি ও সারের দোকানের সামনে অবস্থানকালে উল্লেখিত আসামীরা পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে পূর্ব আক্রোশে হাতে লাঠিসোটা, লোহার রড, ধারালো দা নিয়ে বাদির উপর আক্রমন করেন। এ সময় মনিরুল ইসলামের হুকুমে ও সহযোগীতায় মারপিট শুরু করে। বাদি প্রাণ ভয়ে চাচাতো ভাই আলাউদ্দীনের দোকানের ভিতরে প্রবেশ করলে আসামীরা বাদির পিছুপিছু উক্ত দোকানের ভিতরে অনধিকার প্রবেশ করে একই ভাবে মারপিট অব্যাহত রাখলে চাচা আকরাম সরদার (৫০), চাচাতো ভাই আলাউদ্দীন ঠেকানোর চেষ্টা করলে আসামীরা তাদের দু’জনকে মারপিট করে সাধারণ জখম করে।

আসামী নাঈম ও মনিরুল নিজেদের হাতে থাকা লোহার রড দিয়ে চাচা আকরাম সরদারের ডান পায়ের হাটু ও পিঠে আঘাত করে কাটা রক্তাক্ত হাড় ভাঙ্গা জখম করে। অন্যান্য আসামীরা লাঠিসোটা লোহার রড দিয়ে দোকানের ভিতরে থাকা রেফ্রিজারেটর, টেলিভিশনসহ অন্যান্য মালামাল ভাংচুর করে ১লাখ টাকা ক্ষতি সাধণসহ আসামী সেলিম রেজা দোকানের ক্যাশে থাকা ব্যবসার নগদ ৫৮ হাজার ৯শ’ টাকা চুরি করে নেয়।

আসামী মনিরুল ইসলাম বাদীর পরিহিত শার্টের বুক পকেটে থাকা ১৮ হাজার ৩শ’ ২০ টাকা জোর পূর্বক কেড়ে নেয়। তখন বাদি, তার চাচা আকরাম সরদার, ও চাচাতো ভাই আলাউদ্দীন ডাক চিৎকার দিলে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে আসামীরা হুমকী ধামকী দিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। গুরুতর আহত অবস্থায় আকরাম সরদারকে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এর পরের দিন ৪ জুলাই সকাল সাড়ে ৮ টায় বাদি বাড়ি হতে পদ্মবিলা বাজারস্থ বাদি তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের উদ্দেশ্যে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাহির হলে চাচাতো ভাই আলাউদ্দীনের দোকানের সামনে পৌছানো মাত্রই আসামীরা পূর্বের ন্যায় বাদিকে গতিরোধ করে।

মারপিট শুরু করলে চাচাতো ভাই রিপন (২৮), আব্দুল্লাহ (৩২), আলাউদ্দীন (৩৫) ঠেকানোর চেষ্টা করলে আসামীরা তাদেরকে মারপিট করে শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করে জখম করে। আক্রমনের হাত থেকে বাঁচার জন্য দৌড়ে বাড়ির মধ্যে প্রবেশ করলে আসামীরা ঘরের মধ্যে ঢুকে মারপিট ও ভাংচুরসহ চাচাতো বোন নাসরিন খাতুন (৩৫), কাকী জোহরা বেগম (৬৫), কাকী রুমিচা বেগম (৫৫)গন ঠেকানোর চেষ্টা করলে তাদেরকেও মারপিট করাসহ আসামী রাজীব অসৎ উদ্দেশ্যে বোন নাসরিনের পরনের কাপড় টানা হেচড়া করে শ্লীলতাহানী ঘটায়। গ্রামের লোকজন এগিয়ে আসলে আসামীরা সবাইকে ছেড়ে দিয়ে ঘটনার বিষয় মামলা করলে খুন জখমের হুমকী দিয়ে চলে যায়। চাচাতো ভাই রিপন ও আব্দুল্লাহর অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাদেরকে চিকিৎসার জন্য যশোর ২৫০শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here