ফেসবুকের মাধ্যমে প্রতারণার শিকার এক গৃহবধূ, মামলা দায়ের

0
94

মোকাদ্দেছুর রহমান রকি

ফেইসবুকের মাধ্যমে একটি প্রতারক চক্রের কবলে পড়ে জমি ক্রয় করতে গিয়ে এক গৃহবধূ ২০ লাখ ৩০ হাজার টাক খুইয়েছে। এ ঘটনায় দুই প্রতারকের নামসহ অজ্ঞাতনামা ২/৩জন। প্রতারক আসামীরা হচ্ছে, খুলনা জেলার পাইকগাছা উপজেলার নাসির পুর গ্রামের বর্তমানে সাতক্ষীরা জেলার তালা উপজেলার ঘোষনগর গ্রামের মৃত সুবোধ কুমার ঘোষের ছেলে প্রদীপ কুমার ঘোষ ওরফে সঞ্জিত ও প্রদীপ কুমার ঘোষ ওরফে সঞ্জিতের সহোদর সৌম্য দ্বীপ ঘোষ ওরফে সুশান্ত ঘোষ। প্রতারনার শিকার গৃহবধূ যশোর শহরের বেজপাড়া পিয়ারী মোহন রোড সাদেক দারোগার মোড়ের মৃনাল কান্তি বকসীর স্ত্রী রীতা রানী দাস বাদি হয়ে শনিবার বিকালে কোতয়ালি মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলায় গৃহবধূ রীতা রানী দাস উল্লেখ করেন,তিনি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুক রীতা রানী দাস নামে একটি একাউন্ট পরিচালনা করেন। উক্ত লিংকের মাধ্যমে সৌম্য দ্বীপ ঘোষ ওরফে সুশান্ত ঘোষ নামক একটি ফেইসবুক একাউন্ট পরিচালনা করে। ফেইসবুকের মাধ্যমে সৌম্য ঘোষের সাথে তার পরিচয়। পরবর্তীতে ফেইসবুক ম্যাসেঞ্জারে সৌম্য দ্বীপ ঘোষের সাথে গৃহবধূ রীতা রানী দাসের কথাবার্তা হয়। ফেইসবুক ম্যাসেঞ্জারের মাধ্যমে সৌম্য দ্বীপ ঘোষ টাকার বিশেষ প্রয়োজনে ৮ শতক জমি বিক্রয়ের প্রস্তাব দেয়।

উক্ত প্রস্তাব পেয়ে রীতা রানী দাস জমি ক্রয় করতে ইচ্ছা পোষন করলে সৌম্য দ্বীপ ঘোষ ওরফে সুশান্ত ঘোষ গৃহবধূকে জানায় প্রদীপ কুমার ঘোষ ওরফে সঞ্জিতের মাধ্যমে টাকা গ্রহন করবে।

গত ৭ জুন প্রদীপ কুমার ঘোষসহ অজ্ঞাতনামা ২/৩ জন প্রাইভেট কার নিয়ে রীতা রানী ঘোষের বাড়িতে আসলে। জমি ক্রয় বাবদ ওই দিন নগদ ২লাখ ৩০ হাজার টাকা, অগ্রনী ব্যাংক দড়াটানা শাখা ও ৮ জুন খুলনা কপিলমুনী অগ্রনী ব্যাংক শাখার অনূকুলে দু’টি ৫ লাখ ৫০ হাজার টাকার চেক, ১৪ জুন নগদ ১০ লাখ টাকা ও ২১ জুন নগদ ২লাখ টাকা গ্রহন করে।

এছাড়া,জমি বায়না ও দলিল করা বাবদ ছবি নন জুডিসিয়াল স্ট্যাম্প খরচ বাবদ ৩০ জুন বিকাশের মাধ্যমে ৫০ হাজার টাকাসহ সর্বমোট ২০লাখ ৩০ হাজার টাকা গ্রহন করে। নন জুডিসিয়াল স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করা রয়েছে যেগুলো তারা বিভিন্ন কাজে ব্যবহার করতে পারে বলে বাদি আশংকা প্রকাশ করেছেন মামলায়। পরবর্তীতে জমি লিখে না দিয়ে নানা ভাবে রীতা রানীকে হুমকী ধামকীসহ পরিবারের সদস্যদের নানাভাবে ক্ষতি করার হুমকী দিচ্ছে। বিষয়টি স্থানীয় লোকজনকে জানিয়ে থানায় এসে মামলা দায়ের করেন। পুলিশ প্রতারক চক্রের দুই সহোদর কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here