যশোরে নতুন করে ৯ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১২১

0
20

মোকাদ্দেছুর রহমান রকি

যশোরে ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আরো ১২১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ সময় করোনা ও করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন ৯জন। এদিকে করোনা সংক্রমণের হার উর্দ্ধমুখি হওয়ায় চলমান বিধিনিষেধ বাড়ানো হয়েছে আরও ৭ দিন। সেইসাথে জনগণকেও সচেতন হওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

জেলা সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানাগেছে, ২৪ ঘন্টায় ৩শ’ ৪৩জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১শ’ ২১ জনের শরীরে সংক্রমন করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৩৫ শতাংশ। এসময়ে মারা গেছেন ৯জন। এদের মধ্যে ৪ জন করোনা রোগী এবং অপর ৫ জন করোনা উপসর্গ নিয়ে। বর্তমানে হাসপাতালে ভর্তি আছে ১শ’ ৫৪ জন।

যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার আরিফ আহমেদ সাংবাদিকদের বলেন, যশোর জেনারেল হাসপাতালের করোনা শয্যা সংখ্যার চেয়ে রোগী বেশি হওয়ায় চাপের মধ্যে রয়েছেন চিকিৎসকরা।

যশোরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট কাজী সায়েমুজ্জামান সাংবাদিকদের জানান, করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় বিধি-নিষেধ এলাকা ভিত্তিক থেকে জেলায় সম্প্রসারণ করা হয়েছে। যা কার্যকর করতে প্রশাসন আরো কঠোর হবে। ঔষধের দোকান ছাড়া সকল নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দোকান খোলা থাকবে দুপুর ১২টা পর্যন্ত।

এছাড়া পণ্যবাহী ট্রাক ও অ্যাম্বুলেন্স ছাড়া সকল গণপরিবহণ বন্ধ থাকবে। বুধবার যশোর শহরের প্রাণ কেন্দ্র দড়াটানা এলাকায় পুলিশ নিরাপত্তার বেষ্টনী গড়ে তোলে। বিভিন্ন ভাবে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে। প্রতিবন্ধকতার কারনে জরুরী রোগী ও রোগী ছাড়া এ্যাম্বুলেন্স ও পণবাহী ট্রাক ও কাঁচামাল বাহী বিভিন্ন যানবাহন মূলত যশোর শহরে প্রবেশের মূখে বন্ধ করে দেয়। যার ফলে চরম দূর্ভোগে পড়ে বিভিন্ন পেশার মানুষ। তাই পুলিশের বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতা বন্ধের জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে বিভিন্ন মহল।

তাছাড়া, শহরের প্রবেশ মুখে কাঠেরপুলের দক্ষিণ পাশের্^ লকডাউনের নামে বাঁশ দিয়ে বেঁধে দেওয়ায় সাধারন মানুষ পড়ে চরম সমস্যায়। অবিলম্বে প্রতিবন্ধকতা তুলে দিয়ে বিভিন্নভাবে করোনা ভাইরাসের যন্ত্রনা থেকে সাধারন মানুষ মুক্তি চায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here