বেনাপোলে ফুটপাত উচ্ছেদ ও মাস্ক ব্যবহারে মাঠে পৌর কর্তৃপক্ষ

0
22

বেনাপোল প্রতিনিধি

দেখে বোঝার উপায় নেই, এটি ফুটপাত নাকি ব্যবসাকেন্দ্র। পায়ে হাঁটার জায়গাজুড়ে পণ্যসামগ্রীর পসরা সাজিয়ে চলছে ব্যাবসা। পথচারীরা ফুটপাতে জায়গা না পেয়ে রাস্তায় হাঁটবেন, সেখানেও একই অবস্থা। রাস্তা দখল করে গাড়ি পার্কিং আর ব্যবসা চলছে ব্যস্ততম সীমান্ত শহর বেনাপোল। দেশে করোনা মহামারি যখন প্রচন্ড আঘাত হানছে তখনও বেনাপোল পৌরসভা থেকে স্বাভাবিক ভাবে মাইকিং এবং সচেতনতার লক্ষে দোকানে দোকানে যেয়ে বুঝানোর পরও আবারও তারা বসে পড়ছে ফুটপাতে।

বেনাপোল পৌরসভার মেয়র আশরাফুল আলম লিটনের নির্দেশে ফুটপাত উচ্ছেদ ও মাস্ক ব্যবহারে বুধবার আবারও মাঠে নামেন পৌর কতর্ৃৃপক্ষ। গত মঙ্গলবার জনসচেতনাতর লক্ষে মাঠে পৌর কর্তৃপক্ষ সারাদিন কাজ করলেও আজ সকালে আবারও দেখা যায় বাজারের ফুটপাত দখল ও রাস্তায় পার্কিং করে বিক্রি করছে বিভিন্ন পণ্য সামগ্রী। সকাল সাড়ে ৮ টার সময় পৌর কর্মকর্তা ও পৌর পুলিশ মাঠে নেমে ফুটপাত উচ্ছেদ অভিযান পরিচলানা করেন। এবং তারা সকল দোকানদারদের মাস্ক ব্যবহার করে দোকান পরিচালানা করতে বলেন। এছাড়া ক্রেতাদের সচেতন করে গড়ে তোলার লক্ষে তাদের মধ্যে মাস্ক বিতরন ও যেসব দোকানদার মাস্ক না পরে ব্যবসা পরিচালনা করছে তাদের দোকান থেকে পণ্য না ক্রয় করার জন্য বলেন।

একদিকে ফুটপাতে দখল অন্যদিকে রাস্তায়ও ঠিকভাবে হাঁটার অবস্থা নেই। ফুটপাত থেকে রাস্তার পাশ জুড়ে রয়েছে সারি সারি ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা সাইকেল আর মোটরসাইকেল।

বেনাপোল পৌর মেয়র আশরাফুল আলম লিটন বলেন, দেশ আজ করোনা মহামারির জন্যে এক ক্রান্তি লগ্ন সময় পার করছে। এর মোকাবেলা করার জন্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বিভিন্ন কর্মসুচির মাধ্যেমে মানুষকে সচেতনতা সহ সকল দিকনির্দেশনা দি্েচ্ছন। আমাদের ও সকলকে সচেতন হতে হবে। বেনাপোল স্থল বন্দর ভারত থেকে যাতায়াতের প্রধান প্রবেশদ্বার। এপথে পাসপোর্ট যাত্রী সহ আমদানি রফতানি হয়ে থাকে। তাই আমরা একটু বেশী ঝুকির মধ্যে আছি যেহেতু একদম ভারত সংলগ্ন আমাদের বসবাস। আমরা এই শহর তথা দেশের কথা বিবেচনা করে সকলে সচেতন হলে হয়ত পরিত্রান পাব। ফুটপাত থেকে অবৈধ ব্যবসা উচ্ছেদ করা হলেও আবার তাঁরা দোকান বসান। এ সমস্য সমাধানে পৌর সভার পাশাপাশি সবার সহযোগিতা প্রয়োজন।

বেনাপোল পোর্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুন খান বলেন, আমরা বাজারের পাশে রাস্তা দখল করা দোকান ও বিভিন্ন ধরনের যানবাহন সরিয়ে দিলেও তারা আবারও সেখানে অবস্থান নেয়। তিনি পুলিশ এর পাশাপাশি স্থানীয় সচেতন মহল ও জনপ্রতিনিধিদেরও এ বিষয়টি দেখার জন্য আহবান জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here