বাকী টাকা চাওয়ায় স্বামী-স্ত্রীর হাতে নারী দোকানদার লাঞ্ছিত॥ মামলা

0
48

বিশেষ প্রতিনিধি

মুদী ও চায়ের দোকানে বাকীতে মালামাল খাওয়ার অনেক দিন পর বাকী টাকা চাওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে স্বামী স্ত্রী মিলে নারী দোকান্দারকে মারপিট করার ঘটনায় কোতয়ালি মডেল থানায় মামলা হয়েছে। মামলায় আসামী স্বামী স্ত্রী হচ্ছে যশোর সদর উপজেলার কচুয়া ইউনিয়নের ঘোপ ছাতিয়ানতলার ইসাহক আলীর ছেলে আব্দুর রহমান ও তার স্ত্রী মরিয়ম বেগম।

ওই গ্রামের শামীম হোসেনের স্ত্রী শারমিন সুলতানা বাদি হয়ে কোতয়ালি মডেল থানায় মামলা করেন। মামলায় তিনি উল্লেখ করেন, তাদের বাড়ী সংলগ্ন একটি মুদী ও চায়ের দোকান রয়েছে। শারমিন সুলতানা ও তার স্বামী শামীম হোসেন উক্ত দোকান পরিচালনা করেন। আসামী আব্দুর রহমান উক্ত শামীম হোসেনের বাড়ির পাশাপাশি বসবাস করায় প্রায় সময় শামীম হোসেনকে হুমকী ধামকীর এক পর্যায় জোর পূর্বক বাকিতে বিভিন্ন মালামাল নেন। বাকীতে মালামাল নেওয়ার এক পর্যায় আব্দুর রহমানের কাছে বাকী ৬৫৩০ টাকা পাওয়া যাবে। বাকী টাকা না দিয়ে আব্দুর রহমান বিভিন্ন ভাবে ঘুরাতে থাকে।

গত ২৫ মে রাত সোয়া ৮ টায় আব্দুর রহমানকে উক্ত দোকানের কাছে পেয়ে শারমিন সুলতানা বাকী টাকা চাইলে সে ক্ষিপ্ত হয়ে মুদী দোকানী শারমিন সুলতানাকে মারপিটের এক পর্যায় পরনের শাড়ী কাপড় টানা হেচড়ার এক পর্যায় আব্দুর রহমান ও তার স্ত্রী মরিয়ম বেগম বেধড়ক মারপিট করে। শারমিন সুলতানার চিৎকারে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসলে প্রাণ নাশের হুমকী দেয়। গুরুতর আহত অবস্থায় শারমিন সুলতানাকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here