জানা গেল শার্শায় প্রবাসীর স্ত্রী ধর্ষিত হওয়ার রহস্য !

0
33

বেনাপোল প্রতিনিধি

শার্শায় প্রবাসীর স্ত্রী ধর্ষনের পিছনের গোপন রহস্য বের হতে শুরু করেছে। ধর্ষকরা প্রবাসীর স্ত্রীর প্রেমিক ভাগ্নে মিকাইলকে অবৈধ ভাবে মামির সাথে দীর্ঘদিন ধরে মেলামেশা করার অভিযোগে ধরতে যেয়ে ধর্ষন করে ফেঁসে গিয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। গভীর রাত্রে যখন মামির ঘরে ভাগ্নে তখন ওই গ্রামের ইসরাফিল ও তুহিন ঘরের দরজা খুলতে বলে। এমন সময় মিকাইল এর মা ছায়রা বেগম ওই দুইজনের হাতে পায়ে ধরে। এরপর তারা ভুক্তভোগি ধর্ষিতাকে কিছু বলবে না বলে ছায়রা বেগমের নিকট টাকা চায়। ছায়রা বেগম টাকা দিতে অস্বীকার করলে ঘরের দরজা ভাঙ্গার হুমকি দিলে রুবী নামের ওই নারী দরজা খুলে দিলে মিকাইল পালিয়ে যায়। এরপর ঘরের পিছনে নিয়ে প্রবাসীর স্ত্রীকে ইসরাফিল ধর্ষন করে বলে এমন অভিযোগ করে থানায় ওই প্রবাসীর স্ত্রী।

মিকাইলের মা ছায়রা বেগম বলেন, রাত একটার দিকে ইসরাফিল ও তুহিন এসে তার ভাইয়ের বউ এর দরজা খুলতে বলে। আমি দরজা খুলতে কেন হবে বললে আমাকে তারা মারধর করে ও টাকা চায়। তারপর তুহিন আমাকে ধরে রাখে আর ইসরাফিল তার ভাই বউকে ধরে নিয়ে যায় পাশের একটি কলা বাগানে। সেখানে তার সাথে কি হয়েছে সে বলতে পারে না। তবে তার ভাইয়ের বউ বলেছে তাকে ধর্ষন করেছে। তার ছেলে মিকাইল ওই ঘরে তার মামির সাথে অবৈধ মেলা মেশা করেছে বলে যে গুঞ্জন ছড়িয়েছে এ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি অস্বীকার করেন বলে তার মামা বাড়িতে না থাকায় মামির বাজার সদয় সহ তাকে দেখা শুনা করে। রাত্রে আপনি কেন চিৎকার করেন নাই এবং আপনার কাছে কেন টাকা চেয়েছে বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি কোন কথা বলেন, নাই।

এদিকে ভাগ্নে মিকাইল এর চাচাতো মামা জাহের আলী বলেন, প্রায় বছর খানেক ধরে মিকাইল এর সাথে মালায়েশিয়া প্রবাসি জালাল এর স্ত্রীর সাথে অবৈধ মেলা মেশা রয়েছে। রাত্রে যখন এরকম গুঞ্জন হচ্ছে তখন আমি আমার চাচাতো বোন ছায়েরার কাছে জানতে চাই কি হয়েছে তখন ছায়েরা বলে ওই গাজা টাজা যারা খায় তারা এপথ দিয়ে গেছে। সকালে শুনি ইসরাফিল জালালের স্ত্রীকে ধর্ষন করেছে এবং তুহিন সহযোগিতা করেছে।
তুহিন এর মা রাহিমা বেগম বলেন, দীর্ঘ দিন ধরে মিকাইলের সাথে তার মামির সম্পর্ক। আমার ঘরের পাশে তাদের ঘর। বিষয়টি অনেকেই জানে। তাদের অবৈধ মেলা মেশা হয়ত ধরতে গিয়ে ইসরাফিল এর সাথে কিছু ঘটে থাকতে পারে। তবে মেডিকেল রিপোর্ট আসলে সব জানা যাবে।

ইসরাফিল এর স্ত্রী ফাতেমা ও তুহিন এর স্ত্রী আসমা বলেন, জালাল এর বউ খুব চরিত্রহীনা মেয়ে। সে দীর্ঘ দিন তার স্বামীর ভাগ্নে মিকাইল এর সাথে অবৈধ মেলা মেশা করে আসছে মামার অনুপস্থিতিতে। এরা তাদের ওই রাত্রে জালালের ঘরে হাতে নাতে মিকাইলকে ধরেও ফেলে পরে মিকাইল পালিয়ে গেলে ইসরাফিল এর সাথে কি হয়েছে তারা বলতে পারব না। ভুক্তভোগি নারী থানায় ইসরাফিল এর নামে ধর্ষন ও তুহিনের নামে সহযোগিতার অভিযোগ করেছে।

একই গ্রামের ফজলুর রহমান বলেন, ইসরাফিল ও ভালো মানুষ না। সে এই গ্রামে আরো নারীদের নির্যানত চুরি ছিনতাই করে বেড়ায়। তাকে পুলিশে আটক করলে গ্রামের লোক উৎসাহ উল্লাশে ফেটে পড়ে।

সরেজমিনে বিষয়টি জানতে স্বরুপদাহ গ্রামে গেলে স্থানীয় অনেকে নাম প্রকাশ না করার শর্তে মিক্ইালের সাথে অনেক দিন যাবৎ অবৈধ মেলা মেশার সম্পর্ক রয়েছে বলে মন্তব্য করেন।

শার্শা থানার ওসি বদরুল আলম বলেন, ওই নারীকে পরীক্ষা করতে পাঠানো হয়েছে । রিপোর্ট আসলে সব জানা যাবে। তবে আটককৃত দুই জনকে যশোর জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।আর এর সাথে অন্য কেউ জড়িত আছে কিনা তাও ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here