মোদির সঙ্গে বৈঠক এড়িয়ে গেলেন মমতা

0
68

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
ভারতের ওডিশা ও পশ্চিমবঙ্গে ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের তান্ডবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া এলাকাগুলো আকাশপথে পরিদর্শন করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এরই মধ্যে শুক্রবার পশ্চিমবঙ্গের কলাইকুন্ডায় প্রধানমন্ত্রীর বিমান পৌঁছলে তাকে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্বাগত জানান। পরে সেখানে প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের সঙ্গে ঘূর্ণিঝড় পর্যালোচনা বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী। তবে ওই সভায় মুখ্যমন্ত্রীর থাকার কথা থাকলেও প্রধানমন্ত্রী মোদির সঙ্গে বসেননি তিনি। মমতা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে শুধু সৌজন্য সাক্ষাৎ করে ক্ষয়ক্ষতির নথি দিয়ে এবং উন্নয়নের জন্য ২০ হাজার কোটি টাকার সহায়তা চেয়ে দিঘায় চলেন যান।
কলাইকুন্ডায় ঘূর্ণিঝড় পর্যালোচনা নিয়ে সরকারি পর্যায়ের বৈঠক ডাকা হয়। এতে বিধানসভার বিরোধীদলীয় নেতা শুভেন্দু অধিকারীকেও আমন্ত্রণ জানানো হয়। কার্যত এই শুভেন্দুকে বিরোধী দলনেতা স্বীকৃতি দিয়ে বিধানসভার সচিবালয়ের দেওয়া চিঠি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে রাজ্যের ক্ষমতাসীন তৃণমূল কংগ্রেস।
ভারতীয় মিডিয়ার খবর, এ কারণে ওই বৈঠক এড়িয়ে যান মুখ্যমন্ত্রী। যদিও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলাদাভাবে দেখা করেছেন মমতা। মাত্র দেড় মিনিট দু’জনের সাক্ষাৎ হয়। সে সময় ইয়াসে রাজ্যের প্রায় ২০ হাজার কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে বলে প্রধানমন্ত্রীকে জানান, তিনি। সেই সঙ্গে ক্ষতিগ্রস্ত দিঘা ও সুন্দরবনের জন্য উন্নয়নের জন্য ২০ হাজার কোটি চেয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।
নিউজ১৮ বাংলা টিভির খবরে বলা হয়েছে, আগেই ঠিক হয়েছিল ঘূর্ণিঝড় পর্যালোচনা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর বৈঠকে হাজির থাকবেন না মুখ্যমন্ত্রী। এর আগে শুক্রবার সকালে ওডিশার ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী। এরপর পশ্চিমবঙ্গ সফর করেন মোদি।
ঘূর্ণিঝড় ইয়াস এবং তার জেরে প্রবল জলোচ্ছ্বাসে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে পূর্ব মেদিনীপুর এবং দক্ষিণ চব্বিশপরগনার উপকূলবর্তী অঞ্চল। একদিকে যেমন তছনছ হয়ে গেছে রাজ্যের অন্যতম মূল পর্যটন কেন্দ্র দিঘা, সেরকমই সুন্দরবনের বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়ে বিপুল ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এক বছর আগে আম্পানে বিধ্বস্ত সুন্দরবনের পুনর্গঠনের কাজই এখনও শেষ হয়নি। এর মধ্যে ইয়াসের তা-বে সুন্দরবনের অবস্থা আরও শোচনীয় হয়েছে।
এদিন প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সংক্ষিপ্ত সাক্ষাতের পর সরাসরি ইয়াসে ক্ষতিগ্রস্ত দিঘায় যান মুখ্যমন্ত্রী। পূর্ব মেদিনীপুরের ক্ষতিগ্রস্ত ব্লকগুলোর কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন মমতা। সেখানে দিঘাকে পুনর্গঠনের ওপর জোন দেন তিনি। দিঘায় বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘২০ হাজার কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতির হিসাব এখন পর্যন্ত আমরা পেয়েছি। আর দুটি পরিকল্পনার কথা আমরা প্রধানমন্ত্রীকে বলেছি। দিঘার জন্য ১০ ও সুন্দরবনের জন্য ১০ হাজার কোটি টাকার আর্থিক প্যাকেজের কথা বলেছি।’
তবে দাবি জানালেও কেন্দ্র থেকে কতটা টাকা পাওয়া যাবে তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীকে বলেছি আপনি যা ভালো বুঝবেন তাই করবেন। যদিও আমরা জানি কিছুই পাওয়া যাবে না।’
এরই মধ্যে এ রাজ্যে ইয়াসে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ক্ষতিপূরণের ঘোষণা দিয়েছে সরকার। কৃষক, মৎস্যজীবী, হস্তশিল্পীদের জন্য সেখানে ন্যূনতম তিনশ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৩০ হাজার টাকা পর্যন্ত ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। ‘দুয়ারে ত্রাণ’ শিবির খোলার মাধ্যমে যাচাই-বাছাই করে এ সহায়তা দেবে রাজ্য সরকার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here