ফুলতলা বাজারের ৩’শ ব্যবসায়ীকে উচ্ছেদ নোটিশ, সংবাদ সম্মেলনে জীবন দিয়ে হলেও প্রতিষ্ঠান রক্ষার অঙ্গীকার

0
50

মঈন উদ্দিন, ফুলতলা
করোনা মহামারীতে বিশ্ব যখন কম্পিত সেই মূহুর্তে ফুলতলা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রুলী বিশ্বাস কর্তৃক বাজারের আনুমানিক ৩’শ ব্যবসায়ীকে সর্বমোট ৮.৮৬ একর জমির উপর স্থাপিত ভবন ও দোকানপাট সরিয়ে নেওয়ার নোটিশ এবং তহশীল সড়কে বদরুল আলমের মুদি মালামালের দোকান ৬ মাস যাবত সিলগালা করে রাখার প্রতিবাদে ফুঁসে উঠেছে বাজারের আনুমানিক ৫ সহ¯্রাধিক ব্যবসায়ী পরবর্তীতে সংবাদ সম্মেলন।
ফুলতলা বাজার বণিক কল্যাণ সোসাইটির উদ্যোগে সোমবার বেলা ১২ টায় প্রতিষ্ঠানের কার্যালয়ে উপজেলা প্রশাসনের বিরুদ্ধে ফুলতলা প্রেসক্লাবের নেতৃবৃন্দসহ স্থানীয় সাংবাদিকদের নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বাজার বণিক কল্যাণ সোসাইটির সভাপতি এস রবিন বসু। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক কৃষি বিষয়ক সম্পাদক আসলাম খান, ফুলতলা প্রেস কাবের সভাপতি, উপজেলা দূর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি ও বাজার বণিক কল্যাণ সোসাইটির সহ-সভাপতি এস এম মোস্তাফিজুর রহমান, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুল হক ফারাজী, বাজার বণিক কল্যাণ সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক মনির হাসান টিটো, ফুলতলা প্রেস কাবের সাধারণ সম্পাদক গৌর হরি দাস, বাজার বণিক কল্যাণ সোসাইটির সহ-সাধারণ সম্পাদক শাহীদ মোড়ল, সাংগঠনিক সম্পাদক মাহাবুব আলম মিঠু, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক তারেক হাসান নাইস, ক্রীড়া সম্পাদক খন্দকার রকিবুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক আবুল খায়ের, কোষাধ্যক্ষ কবির জমাদ্দার, স্বর্ণ ব্যবসায়ী নেতা দুলাল অধিকারী, কাপড় ব্যবসায়ী নেতা আঃ রহমান মিলন, চাল ব্যবসায়ী নেতা রমেশ কুন্ডু, আনিস মোল্যা, ইলেকট্রনিক্স ব্যবসায়ী জাহাঙ্গীর মোড়ল, বাজার বণিক কল্যাণ সোসাইটির সদস্য আল আমিন শেখ, আনিসুল ইসলাম মিন্টু, মোল্যা ইলিয়াজ হোসেন, জুলহাস আহম্মেদ (জুলু), আঃ সাত্তার রানা জমাদ্দার, মোশাররফ হোসেন বিপ্লব প্রমুখ।
লিখিত বক্তব্যে উল্লেখ করা হয় শতাধিক বছরের পুরোনো ও ঐতিহ্যবাহী ফুলতলা বাজারে ফুলতলা ও অভয়নগর উপজেলার প্রায় ৫ হাজার ব্যবসায়ী দীর্ঘদিন যাবত সুনামের সাথে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছেন। যাদের মধ্যে অধিকাংশ দোকানদারের পৈত্রিকসুত্রে সি.এস রেকর্ডভুক্ত জমি রয়েছে এবং এদের মধ্যে অনেকেরই সি.এস, এস.এ, আর.এস রেকর্ডভুক্ত জমি আছে যারা নিয়মিত ভূমি উন্নয়ন করও পরিশোধ করে থাকেন। এমতবস্থায় গত ২৮/০৪/২০২১ ইং তারিখে ফুলতলা বাজারের আনুমানিক ৩’শ ব্যবসায়ীকে সহকারী কমিশনার (ভূমি) রুলী বিশ্বাস স্বাক্ষরিত এক নোটিশ প্রদান করা হয় যাতে ৭ দিনের মধ্যে ৮.৮৬ একর জমির উপর স্থাপিত ভবন ও দোকানপাট সরিয়ে নেওয়ার কথা উল্লেখ করা হয়েছে।
এছাড়াও উপজেলা প্রশাসন অমানবিকভাবে ফুলতলা বাজারের তহশীল সড়কে বদরুল আলমের মুদি মালামালের দোকান ৬ মাস যাবত সিলগালা করে রেখেছে। এ ব্যাপারে প্রশাসনের নিকট বণিক কল্যাণ সোসাইটির কর্মকর্তারা কয়েকবার ধর্না দিয়েও তার সুফল মেলেনি। উল্লেখ থাকে যে, অত্র বাজার থেকে সরকার প্রতি বছর ৬০/৭০ লক্ষ টাকা রাজস্ব পায় যা বর্তমান সরকারের উন্নয়নের সহায়ক।
২০২০ সাল থেকে সৃষ্ট করোনা মহামারীতে ব্যবসায়ীরা মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ ও ব্যাংকের দায়-দেনায় জর্জরিত। অনেকেই পরিবার পরিজন নিয়ে অর্ধহারে অনাহারে দিন অতিবাহিত করছেন। এমতবস্থায় উপজেলা প্রশাসনের তরফ থেকে এই ধরনের নোটিশ প্রদান বাজারের ব্যবসায়ী ও বণিক কল্যাণ সোসাইটির কর্মকর্তাদের হতবাক করেছে। ফলে অত্র নোটিশের কার্যক্রম স্থগিত এবং বদরুল আলমের সিলগালাকৃত মুদি দোকান খুলে দেওয়াসহ স্থায়ীভাবে উল্লেখিত সমস্যার সমাধানের লক্ষ্যে জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনের প্রতি ফুলতলা বাজার বণিক কল্যাণ সোসাইটি ও বাজারের ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে জোর দাবি জানানো হয়। উক্ত নোটিশের কার্যক্রম স্থগিত না হলে বাজার বণিক কল্যাণ সোসাইটি ব্যবসায়ীদের সাথে নিয়ে ফুলতলা বাজার বন্ধসহ বৃহত্তর আন্দোলনের কর্মসূচী ঘোষনা করবে বলে হুশিয়ারী উচ্চারণ করেন। বাজারের ব্যবসায়ীরা জীবন দিয়ে হলেও তাদের নিজস্ব সম্পত্তি ও প্রতিষ্ঠান রক্ষা করবেন বলে অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here