গৃহবধূর মামলায় লোভী স্বামী গ্রেফতার

0
11

বিশেষ প্রতিনিধি
দফায় দফায় যৌতুক দাবি করে নির্যাতনের মুখে যৌতুক হিসেবে নগদ ৮লাখ টাকা ও মোটর সাইকেল নেওয়ার পর পুনরায় ৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে নির্যাতন পূর্বক পুনরায় দ্বিতীয় বিয়ে করার অভিযোগে কোতয়ালি মডেল থানায় মামলা হয়েছে। ঘটনাটি যশোর সদর উপজেলার মাহিদিয়া উত্তর পাড়ার। পুলিশ যৌতুক লোভী স্বামী জাকির হোসেনকে গ্রেফতার করেছে। সে যশোরের চৌগাছা উপজেলার বর্নি গ্রামের মৃত হোসাইন মাষ্টারে ছেলে বর্তমানে মহিদিয়া উত্তর পাড়ার বাসিন্দা।
যশোর সদর উপজেলার তফসীডাঙ্গা গ্রামের মৃত জালাল উদ্দিনের মেয়ে বর্তমানে সদর উপজেলার মাহিদিয়া গ্রামের মোছাঃ মাছুরা খাতুন রুপা বাদি হয়ে শনিবার দিবাগত গভীর রাতে ২ মে কোতয়ালি মডেল থানায় মামলা করেন। মামলায় তিনি উল্লেখ করেন, বিগত ৯৮ সালের ২ ডিসেম্বর জাকির হোসেনের সাথে তার শরীয়ত মোতাবেক বিয়ে হয়। বিয়ের পর স্বামীর সংসারে মাছুরা খাতুন ওরফে রুপা তিন কন্যা সন্তানের জননী হন। ঘর সংসার করার এক পর্যায় জাকির হোসেন তার স্ত্রীর কাছে প্রায় সময় যৌতুক হিসেবে টাকা পয়সা দাবি করে। যৌতুকের টাকা দিতে রাজী না হওয়ায় নির্যাতনের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়।
মাছুরা খাতুন রুপার সুখের কথা চিন্তা করে রুপার বড় ভাই ও মাতা মাহিদিয়া গ্রামের একটি বাড়ি নির্মান করে দেয়। বিভিন্ন সময় জাকির হোসেনকে আনুমানিক ৮ লাখ টাকা ও একটি মোটর সাইকেল যৌতুক হিসেবে প্রদান করে। তার পরও যৌতুকের টাকার জন্য নির্যাতন শুরু করে। এক সময় যৌতুকের টাকার জন্য তালাক দেওয়র হুমকী দেয়। গত ১৫ মার্চ সকাল সাড়ে ৯ টায় জাকির হোসেন রুপার কাছে পৈত্রিক বসত বাড়িসহ জমি বিক্রয় করে আরো ৫লাখ টাকা যৌতুক দবি করে। যৌতুকের টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে বাঁশের লাঠি দিয়ে এলোপাতাড়ীভাবে মারপিট করে। ইতিপূর্বে বিভিন্ন এনজিও থেকে ঋন নেওয়ার কথা বলে সাদা কাগজে ও স্ট্যাম্পে রুপাকে দিয়ে স্বাক্ষর করে নেয়। ইতি পূর্বে জাকির হোসেন আরো কয়েকটি বিয়ে করেছে। মামলা হওয়ার পর পুলিশ জাকির হোসেনকে গ্রেফতার করে রোববার আদালতে সোপর্দ করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here