আশাশুনিতে সাংবাদিককে জীবননাশের হুমকি

0
19

আশাশুনি প্রতিনিধি
আশাশুনি উপজেলার কুল্যা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল বাছেত আল হারুন চৌধুরীর বিরুদ্ধে এক সাংবাদিককে জীবননাশের হুমকী প্রদানের অভিযোগ উঠেছে।
এঘটনায় ঐ সাংবাদিক জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে আশাশুনি থানায় ৩০৪ (০৮/০৪/২১) নম্বর সাধারণ ডায়েরী করেছেন। তবে ইউপি চেয়ারম্যান উক্ত ঘটনা মিথ্যা বলে দাবী করেছেন। জানাগেছে, গত ৭ এপ্রিল রাত ১০টার দিকে কুল্যা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল বাছেত আল হারুন চৌধুরী ও ৩নং ওয়ার্ডের গ্রাম পুলিশ রেফাজুল ইসলাম বাহাদুরপুর গ্রামের আব্দুল করিম সরদারের ছেলে আজকের বসুন্ধরা পত্রিকার আশাশুনি প্রতিনিধি রুহুল কুদ্দুস ওরফে রুবেল এর বাড়ির সামনে গিয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে করতে তোর সাংবাদিকতা ঘুচাবো, মিথ্যা মামলা দিয়ে জেল হাজত খাটাবো ইত্যাদি কথা বলে স্থান ত্যাগ করেন।
এব্যাপারে রুহুল কুদ্দুস বলেন, গত ২৬ মার্চ ও ৪ এপ্রিল দৈনিক আজকের বসুন্ধরা প্রত্রিকায় কুল্যা ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বিভিন্ন দূর্নীতির নিউজ করায় তিনি আমাকে এ জীবনাশের হুমকি দিয়েছেন। অভিযুক্ত গ্রাম পুলিশ রেফাজুল ইসলাম এর কাছে এ বিষয় জানতে চাইলে চেয়ারম্যান সাহেব ও তিনি ঐ সাংবাদিককে কোন কিছুই বলেননি বলে জানান।
এব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল বাছেত আল হারুন চৌধুরী জানান, রুহুল কুদ্দুস ওরফে রুবেল কুল্যা ইউনিয়ন পরিষদে এনজিও আইডিয়াল এর প্রতিনিধি হিসাবে দ্বায়িত্ব পালন করার সময় ভিজিডির ২০১৯-২০ চক্রের সঞ্চয়ের বেশ কিছু টাকা গোপনে আত্মসাৎ করে।
যা ২৪ মাস শেষ হলে সঞ্চয়ের টাকা উপকারভোগীদের মাঝে ফেরত প্রদানের সময় আমি জানতে পারি। এরপর আমি তাকে শোকজ করি। সে জবাব না দিয়ে লাপাত্তা হয়ে আমার বিরুদ্ধে এসব মিথ্যা অপপ্রচার চালাচ্ছে।
এসময় ইউপি চেয়ারম্যান ঐ সাংবাদিককে কোন জীবননাশের হুমকী প্রদান করেননি বলে দাবী করেন। আশাশুনি থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ গোলাম কবীর জানান, বিষয়টি ইতিমধ্যে তদন্তের জন্য একজন অফিসারকে দ্বায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তদন্তপূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here