প্রধানমন্ত্রী দক্ষ নেতৃত্বে যেমনভাবে সচল রেখেছেন অর্থনীতির চাকা, তেমনি স্বল্প আয়ের লোকজনের জন্য অব্যহত রেখেছেন ত্রাণ সহযোগিতা : খুলনা জেলা প্রশাসক

0
69

মঈন উদ্দিন, ফুলতলা
খুলনার জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন বলেছেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার একান্ত প্রচেষ্টা আর সুদুর প্রসারী চিন্তা ভাবনার মাধ্যমে করোনার প্রথম ধাক্কা মোকাবেলায় সফল হয়েছেন। তিনি যেমনভাবে সচল রেখেছেন অর্থনীতির চাকা তেমনি স্বল্প আয়ের লোকজন যাতে ভেঙে না পড়ে তার জন্য অব্যহত রেখেছেন বিভিন্ন ধরনের ত্রাণ সহযোগিতা।
তিনি আরও বলেন, পশ্চিমা বিশ্বের উন্নত দেশসমুহ কোভিড- ১৯ মোকাবেলায় আজ তারা দিশেহারা কিন্ত বাংলাদেশের মত জনবহুল দেশ প্রধানমন্ত্রীর দক্ষ নেতৃত্বে করোনা মহামারী সংকট নিরাসন করে আসছে। শেষে তিনি সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পরামর্শ প্রদান করেন। তিনি বৃহস্পতিবার দুপুর ১২ টায় ফুলতলার ডাবুর মাঠে করোনাকালীণ লকডাউনে কর্মহীন, দুঃস্থ, ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারসমূহকে মুজিববর্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার বিতরণ অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তৃতায় একথা বলেন।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া আফরিনের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন খুলনার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ইউসুপ আলী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বি- সার্কেল) খায়রুল আলম, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শেখ আকরাম হোসেন, জেলা ত্রাণ ও পূর্ণবাসন কর্মকর্তা আজিজুল হক জোয়ার্দ্দার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) রুলী বিশ্বাস, থানার অফিসার ইনচার্জ মাহাতাব উদ্দিন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সরদার শাহাবুদ্দিন জিপপী, ফুলতলা প্রেসক্লাবের সভাপতি, উপজেলা দূর্নীতি প্রতিরোধ কমিটি ও বাজার বণিক কল্যাণ সোসাইটির সহ-সভাপতি এস এম মোস্তাফিজুর রহমান, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান শরীফ মোহাম্মদ ভূঁইয়া শিপলু, শেখ মনিরুল ইসলাম, শেখ আবুল বাশার ও মাও. সাইফুল হাসান প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা ফারহানা ইয়াসমিন।
উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার দামোদর ইউনিয়নের ২৫০ টি দুঃস্থ ও ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারকে ১ হাজার করে নগদ টাকা প্রধান করা হয়। পরবর্তীতে ফুলতলা উপজেলার বাকী ৩ টি ইউনিয়নের প্রতিটিতে ২৫০ টি করে দুঃস্থ ও ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারকে উল্লেখিত সহায়তা প্রদান হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here