নড়াইলে নানা আয়োজনে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত

0
89

নড়াইল প্রতিনিধি
নড়াইলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে পালিত হয়েছে। কর্মসূচির মধ্যে ছিলো তপোধ্বনি, পতাকা উত্তোলণ, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি, র‌্যালি, আলোচনা সভা, কেক কাটা, উন্নতমানের খাবার পরিবেশন, চিত্রাঙ্কন, কবিতা আবৃত্তি, বঙ্গবন্ধুর ভাষণসহ বিভিন্ন প্রতিযোগিতা ও দোয়া অনুষ্ঠান।
বুধবার (১৭মার্ব) প্রত্যুষে ৩১বার তপোধ্বনির মধ্যদিয়ে দিনের কর্মসূচি শুরু হয়। সকাল ৭টায় আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলণ করেন আ’লীগ নেতৃবৃন্দ। এরপর বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি ও বঙ্গবন্ধুর মুর‌্যালে শ্রদ্ধাঞ্জলি ও বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।
সকাল ৮টায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পুরাতান বাসটার্মিনাল বঙ্গবন্ধু চত্বও থেকে একটি র‌্যালি বের হয়। র‌্যালিটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে জেলা শিল্পকলা একাডেমী চত্বরে গিয়ে শেষ হয়। এসময় অস্থায়ী মঞ্চে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেন জেলা প্রশাসন, জেলা পরিষদ, বীরমুক্তিযোদ্ধা, পুলিশ সুপার, সংসদ সদস্যের প্রতিনিধি, উপজেলা পরিষদ, পৌরসভা, আওয়ামীলীগ সহ অঙ্গ সংগঠন, সরকারী বিভিন্ন দপ্তর, শায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সাংস্কৃডুশ সংগঠনসহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ।
শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে ১০১ পাউন্ডের কেক কাটা হয়। পরে জেলা শিল্পকলা হলরুমে দিবসের তাৎপর্যের উপর আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
এসব কর্মসূচিতে নড়াইল জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান, পুলিশ সুপার প্রবীর কুমার রায় পিপিএম (বার), পৌর মেয়র আঞ্জুমান আরা, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুবাস চন্দ্র বোস, সাধারন সম্পাদক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিন খান নিলু, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ইয়ারুল ইসলাম, সিভিল সার্জন ডা. নাছিমা আক্তার, জেলা মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান সালমা রহমান কবিতা, সদর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ইসমত আরা সহ বিভিন্ন সরকারি বে-সরকারি প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের কর্মকর্তা কর্মচারিসহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে দুপুরে নড়াইল পৌরসভায় ১০১ পাউন্ডের কেক কাটা, আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
দিনটি পালন উপলক্ষে পুলিশ প্রশাসনের উদ্যোগে শতাধিক হতদরিদ্র শিশুদের মাঝে খাবার বিতরণ, আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
এছাড়া সরকারী, বে-সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে আলাদা আলাদা কর্মসুচি পালিত হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here