যশোরে গভীর রাতে যশোর মাগুরা সড়কে ডাকাতি প্রস্তুতিকালে এক ডাকাত সদস্য অস্ত্র গুলি ও সরাঞ্জামসহ গ্রেফতার,দু’টি মামলা

0
46

 

বিশেষ প্রতিনিধি

সোমবার দিবাগত গভীর রাতে যশোর মাগুরা মহাসড়কের সদর উপজেলার হাশিমপুর বাজারের রাহেলাপুর গামী হাশিমপুর গ্রামের শাহাদৎ হোসেন এর চায়ের দোকানের সামনে ডাকাতি প্রস্তুুতির সময় পুলিশ শামীম আহাম্মেদ নামে এক ডাকাত সদস্যকে গ্রেফতার করেছে। এসময় তার দখল হতে একটি ওয়ান স্যুটারগান, এক রাউন্ড গুলি,৪টি হাসুয়া,১টি লোহার সাবল,২টি লোহার রড ও ১টি লোহার গাছকাটা করাত এবং একটি ট্রাক জব্দ করেছে। এ ঘটনায় কোতয়ালি মডেল থানায় দু’টি মামলা হয়েছে। গ্রেফতারকৃত শামীম আহাম্মেদ চুয়াডাঙ্গা জেলার সদর উপজেলার ডিঙ্গেদাহ খেজুরা বাজার কামাল শেখ ওরফে জুমাত আলীর ছেলে। গ্রেফতারকৃত ডাকাতের দেয়া তথ্য মতে পলাতক আরো ৪ ডাকাতের নাম পেয়েছে পুলিশ। পলাতক ডাকাতেরা হচ্ছে, কুষ্টিয়া জেলার ফারুক,চুয়াডাঙ্গা জেলার সদর উপজেলার নাগদা গ্রামের বিপ্লব,চুয়াডাঙ্গা দর্শনা থানার মোবারক পাড়া (শান্তিপাড়া) গ্রামের রাকিব ও চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা থানার শাহিনসহ অজ্ঞাতনামা ৬/৭জন।

যশোর ইছালী পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ মিজানুর রহমান বাদি হয়ে মঙ্গলবার ভোর রাতে কোতয়ালি মডেল থানায় বাদি হয়ে গ্রেফতারকৃত ও পলাতক ডাকাতের বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলায় তিনি বলেছেন, সোমবার দিবাগত গভীর রাতে নিয়মিত রাতের টহল ডিউটি করাকালে মনোহর পুর বাজার এলাকায় অবস্থান কালে গোপন সূত্রে খবর পাই হাশিমপুর বাজারের রাহেলাপুর গামী হাশিমপুর গ্রামে শাহাদৎ হোসেনের চায়ের দোকানের সামনে রাস্তার উপর কয়েকজন ডাকাত ট্রাকসহ রাস্তায় ডাকাতি করার জন্য সমবেত ও ডাকাতির প্রস্তুুতি নিচ্ছে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছালে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাত সদস্যরা ট্রাক থেখে লাফিয়ে পড়ে দৌড়ে পালানোর সময় শামীম আহাম্মেদকে ধরে ফেলে। অন্যান্যরা আসামীরা দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরে শামীম আহাম্মেদ এর কাছ থেকে ডাকাতি করার তথ্য উদঘাটন করেন। পরে গ্রেফতারকৃত ডাকাতকে কোতয়ালি মডেল থানায় সোপর্দ করে ডাকাতি প্রস্তুুতি ও অস্ত্র আইনে দু’টি মামলা করেন। শামীম আহাম্মেদকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here