শালিখার চাষিদের সবজি চাষের আগ্রহ বাড়ছে

0
32

 

শালিখা প্রতিনিধি॥ ধান চাষ ছেড়ে সবজি চাষের দিকে ঝুঁকছে শালিখার কৃষকরা। এ বছরের প্রথম দিকে তরকারি দাম ভালো থাকায় উপজেলার প্রায় সকল গ্রামের মাঠেই দেখা মিলেছে সবজির আবাদ। ফুল কপি, বাঁধা কপি, ওল কপি, ডাটা, আলু, পেঁয়াজ, মিষ্টিকুমড়ো, লাউ ও সীম সবচেয়ে বেশি চাষ হচ্ছে। উপজেলার আড়পাড়া তালখড়ি ও ধনেশ্বরগাতীর মাঠ গুলোর ওপর নজর দিলে দেখা যায় অসংখ্য সবুজ ক্ষেতের সমারোহ। ২০২০ সালের প্রথম দিকে করোনার কারণে সবজির দাম ছিল আকাশ ছোঁয়া। তখন ৫০ থেকে ১০০ টাকার নিচে কোন তরকারি পাওয়া যায়নি। পিয়াজ সকল রেকর্ড ভেঙ্গে ২/৩শত টাকা দরে, কুমড়ো ৫০/৬০ টাকা দরে, লাউ প্রতিটি ৫০/৭০ টাকা দরে বিক্রি হতে থাকে। এই দামকে লুফে নিতে প্রায় সকল কৃষক তার একটি নির্দিষ্ট জমিতে শুরু করেছে সবজির চাষ। বর্তমানে যার সুফলও তারা পাচ্ছে। সবজির এই সমারোহ দেখতে উপজেলার চুকিনগর গ্রামের মাঠে গিয়ে দেখা যায় এ এলাকায় সম্পূর্ণ নতুন সবজির গাজর, ব্রোকলিসহ কোথাও কোথাও ক্যাপসিকামের চাষও হচ্ছে। বর্তমানে সবজির দাম খুবই কম। কিছু কিছু গ্রামে দেখা যাচ্ছে সবজি গরুকে খাওয়ানো হচ্ছে। এ ব্যাপারে তালখড়ি ইউনিয়নের সেওজগাতী গ্রামের চাষিদের কাছে জানতে চাইলে তারা বলেন, সময় মতো বিক্রি করতে না পারলে সবজির বয়স হয়ে যায়। তখন তা খাওয়ার উপযোগি থাকে না। তাই এগুলো গরুকে খাওয়ানো হচ্ছে। তবে এতে তাদের কোনরকম লোকসান হয় না বা হচ্ছেও না। উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের কার্যালয় সূত্রে জানায় চলতি রবি মৌসুমে উপজেলার ৬৯০ হেক্টর জমিতে বিভিন্ন ধরনের সবজির আবাদ হয়েছে। এছাড়া ৩৬ হেক্টর জমিতে আলুর চাষ হয়েছে। যা গত বছরের তুলনায় অনেক বেশি। সরেজমিনে দেখা গেছে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ধানের পাশাপাশি বিস্তীর্ণ জমিতে ব্যাপকহারে সবজি চাষ হয়েছে। এসব জমিতে সিম, বরবটি, চিচিঙ্গা, ধুন্দল, করোলা, মরিচ, বেগুন, টমেটোসহ বিভিন্ন ধরনের কপিসহ অনেক রকম সবজি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here