যশোর শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যানের প্রতিহিংসামূলক কর্মকান্ডের প্রতিবাদে বোর্ডের এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ চিঠি দিয়ে সমাধান চেয়েছেন

0
128

এম আর রকি : মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড যশোরের চেয়ারম্যানের প্রতিহিংসা মূলক কর্মকান্ডের প্রতিবাদে যশোর শিক্ষাবোর্ড এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ রোববার স্বয়ং চেয়ারম্যানকে চিঠি দিয়েছে। চিঠিতে যশোর শিক্ষাবোর্ড এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের নির্বাচিত নেতৃবৃন্দসহ সিবিএ সমর্থিত চর্মচারীদের হয়রানী মূলক বদলী, চাকুরীচ্যুতির হুমকি এবং সিবিএ কে অকার্যকর করার ষড়যন্ত্র থেকে বিরত থাকার আহবান জানানো হয়েছে।
রোববার ২১ জুন সকালে যশোর শিক্ষাবোর্ড এমপ্লয়িজ ইউয়িনের নেতৃবৃন্দর চিঠি চেয়ারম্যানের দপ্তওে পৌছানো হয়েছে। চিঠিতে বলা হয়েছে, গত ২৯ জানুয়ারী বোর্ডে চেয়ারম্যান হিসেবে আপনি যোগদান করেছেন। আপনি বোর্ডে যোগদানের পর এক বক্তব্যে বলেন, দল করলে চাকুরী থেকে বরখাস্ত করা হবে বলে হুমকী প্রদান করেন। অথচ আপনি অবগত আছেন যে যশোর শিক্ষাবোর্ডে নির্বাচিত সিবিএ ও শ্রমিক কর্মচারী লীগের একটি কমিটি আছে। সিবিএ এর প্রায় সকল নেতৃবৃন্দই যশোর শিক্ষাবোর্ড শ্রমিক কর্মচারী লীগ ও যশোর জেলা শ্রমিক লীগের কমিটিতে গুরুত্বপূর্ণ পদে আছে। আমরা আমাদের বক্তব্যে আপনার সকল ভালো কাজে সহযোগিতার আশ^াস প্রদান করি এবং কোন প্রতিহিংসা ও পক্ষপাত মূলক আচরণ না করার জন্য আহবান করি। কিন্ত অত্যন্ত দুঃখের বিষয় আপনি সিবিএ’র আহবানে সাড়া না দিয়ে সিবিএ নির্বাচনে পরাজিত পক্ষের সাথে আতাত করে তাদের পরামর্শে গত ৬ ফেব্রুয়ারী সিবিএ এর সভাপতি, সহ-সভাপতি ও শ্রমিক কর্মচারী লীগের নেতৃবৃন্দসহ ২০ জন কর্মচারীকে হয়রানী মূলক বদলী করেন। উক্ত বদলীতে সিবিএ এর সভাপতি ওপেনহার্ট সার্জারী করা সত্বেও তাকে তৃতীয় তলায় বদলী করেন।
এছাড়া সিবিএন এর সহ-সভাপতি ও যশোর শিক্ষাবোর্ড শ্রমিক কর্মচারী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য মোঃ দেলোয়ার হোসেন রেকর্ড সাপ্লায়ারকে দারোয়ান পদে বদলি করন। যা অসম্মান জনক ও আপনার প্রতিহিংসার বহিঃপ্রকাশ। সভাপতি নিজের অসুস্থ্যতার কথা জানিয়ে নিচতলায় যেকোন শাখায় বদলির জন্য আপনাকে মৌখিকভাবে অনুরোধ করেন। কিন্ত আপনি সভাপতিকে তার নিজের বদলীর জন্য আবেদন করতে বলেন অথচ আপনি একাধিক ব্যক্তি ২য়বার এমনকি কাউকে কাউকে ৩য় বার বদলি করলেও তাদের কাছ থেকে আবেদন গ্রহন করেননি। যা সিবিএ এর নির্বাচিত সভাপতি হিসেবে অসম্মানজরক। এ সকল সমস্যা সমাধানের জন্য বারবার মৌখিকভাবে জানানো হলেও আপনি তা সমাধান করেননি এবং সিবিএ এর নেতৃবৃন্দেও সাথে কোন আলোচনা করেনি। পক্ষান্তওে সিবিএ এর প্রতিপক্ষ গ্রুপের সাথে যে গ্রুপের অধিকাংশ নেতৃবৃন্দ আওয়ামী বিরোধী তাদেও সাথে সার্বক্ষনিক শলা পরামর্শ করেন।
পরবর্তীতে ১০ মার্চ মাত্র এক মাস ১০ দিনের মধ্যে সিবিএ এর কোষাধ্যক্ষ ও দপ্তর সম্পাদকসহ ২১জন কর্মচারীকে পুনরায় বদলি করেন। এছাড়াও সর্বশেষ গত ১৪ জুন সিবিএ এর সাধারণ সম্পাদক যিনি যশোর জেলা শ্রমিক লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও যশোর শিক্ষাবোর্ড শ্রমিক কর্মচারী লীগের সভাপতি, সিবিএ এর সহ সাধারণ সম্পাদক এবং যিনি যশোর জেলা যুব শ্রমিক লীগের যুগ্ম আহবায়ক ও যশোর শিক্ষাবোর্ড শ্রমিক কর্মচারী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদকসহ ১৯জন কর্মচারীকে সিবিএ এর সাথে আলোচনা ছাড়াই তৃতীয় দফায় বদলী করেন। যা সিবিএ নেতৃবৃন্দের জন্য অসম্মানজনক।
চিঠিতে চেয়ারম্যানকে উল্লেখ করেন বলেন, আপনি বোর্ডে সচিব থাকাকালীন প্রশ্নপত্রের খাম এবং দরপত্র কাটাকাটি, জরুরী প্রয়োজন দেখিয়েস স্পট কোটেশনে কোটি টাকার অধিক কাজজ ক্রয় করা, কম্পিউটার, প্রিন্টার যন্ত্রাংশ উত্তরপত্র ও অতিরিক্ত উত্তর পত্রসহ বিভিন্ন কেনা কাটায় অনিয়মের অভিযোগ, ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কাছে ঘুষ চাওয়ার অভিযোগে আদালতে ও দুদুকে মামলা এবং আদালত অবমাননার মামলাসহ স্থানীয় ও জাতীয় পত্রিকায় আপনার বিরুদ্ধে একাধিক রিপোর্ট প্রকাশিত হয়। ওই সময় আপনি সিবিএ এর সহযোগিতা কামনা করেছিলেন। আপনার অনৈতিক কাজে সিবিএ এর নেতৃবৃন্দ তখন আপনাকে সমর্থন করেনি। আপনার কর্মকান্ডের জন্য আপনাকে বদলী করা হয় সে সময়। আপনি বদলী হয়ে যাওয়ার সময় আপনার দূর্নীতির খতিয়ান গায়েব করেন। যে ঘটনা পত্র পত্রিকায় প্রকাশিত হয়।
মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তি সিবিএ ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় সিবিএ ও যশোর শিক্ষাবোর্ড শ্রমিক কর্মচারী লীগের নেতৃবৃন্দকে আলোচনা ছাড়াই গণহারে বারবার বদলী ও হুমকি প্রদান করা থেকে এটা প্রতিয়মান হয় যে, আপনি সচিব থাকাকালে আপনার অনৈতিক কাজে সমর্থন না করায় প্রতিহিংসা পরায়ন হয়ে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের সমর্থিত কর্মচারীদেরকে হয়রানী মূলক বদলী করে আপনি প্রতিশোধ গ্রহন করছেন। আপনার এহেন আচারনে বোর্ডে শান্তিপ্রিয় ও নিরীহ কর্মকর্তা কর্মচারীরা আতংকিত হয়ে পড়েছে। আপনি জানেন যে, যশোর শিক্ষাবোর্ড বাংলাদেশের মধ্যে একটি মডেল বোর্ড হিসেবে পরিচিত। এমতাবস্থায় আপনি এ বোর্ডে যোগদানের পূর্বে কর্মচারীরা যে যে শাখায় কর্মরত ছিলেন সে সকল শাখায় তাদেরকে পুনরায় যোগদানের আদেশ প্রদান করে নির্বাচিত সিবিএ প্রতিনিধিদলের সাথে পরামর্শ করে অফিস সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার স্বার্থে পুনরায় বদলির আদেশ প্রদান করার জোর দাবি জানিয়েছেন। অন্যথায় সাধারণ কর্মচারীদেও দাবির প্রেক্ষিতে নির্বাচিত সিবিএ, ¤্রম আইন মেনে নিয়মতান্ত্রিক ও শান্তিপূর্নভাবে আন্দোলনে যেতে বাধ্য হবে।


Warning: A non-numeric value encountered in /home/njybpvbk/public_html/wp-content/themes/Newspaper/includes/wp_booster/td_block.php on line 1009

Warning: Use of undefined constant TDC_PATH_LEGACY - assumed 'TDC_PATH_LEGACY' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/njybpvbk/public_html/wp-content/plugins/td-composer/td-composer.php on line 109

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here