মণিরামপুর উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগ

0
58

মণিরামপুর প্রতিনিধি: মণিরামপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নাজমা খানমের বিরুদ্ধে আম্ফান ঝড় পূর্বক প্রস্তুতিমূলক সভায় উপস্থিত না হওয়া, বঙ্গবন্ধুর মুর‌্যাল নির্মানে টালবাহানা, ইউএনও’র সাথে খারাপ আচরন, প্রভাব খাটিয়ে পুত্রকে দিয়ে ফাইলে স্বাক্ষর করিয়ে নেয়াসহ নানা অভিযাগে উঠেছে। এছাড়া এডিপির টাকায় সেলাই মেশিন, বাইসাইকেল, ক্রীড়া সামগ্রি ও হুইল চেয়ার ক্রয়ে অসংগতিরও অভিযোগ উঠেছে। এ নিয়ে বৃহস্পতিবার উপজেলা মাসিক সভায় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ রেজুলেশনকারে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর সিদ্ধান্ত সভায় উপস্থিত সদস্যদের সর্বসম্মতিক্রমে গৃহীত হয়েছে বলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নিশ্চিত করেছেন।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, ঘুর্ণিঝড় আম্ফান দূযোর্গ, করোনা ভাইরাস রোধে করনীয়, বঙ্গবন্ধুর মুর‌্যাল নির্মান নিয়ে গত ২০ এপ্রিল উপজেলা পরিষদের জরুরী মাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান উপদেষ্টা হিসেবে স্থানীয় এমপি এলজিআরডি মন্ত্রণালয়ের পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য উপস্থিত ছিলেন। নিয়মানুযায়ী উপজেলা চেয়ারম্যান ওই সভায় সভাপতিত্ব করে থাকেন। কিন্তু উপজেলা চেয়ারম্যান নাজমা খানমকে অবহিত করার পরও সভায় উপস্থিত হননি। উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজি জলি আক্তার সভায় সভাপতিত্ব করেন।
দেশের এমন দূর্যোগ মুহুর্তে জরুরী সভায় উপজেলা চেয়ারম্যান না থাকাটা রাষ্ট্রীয় কাজে বাঁধাদানের শামিল বলে সভায় উপস্থিত সদস্যরা উপজেলা চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে কঠোর সমালাচনা করে বক্তব্য প্রদানসহ তার বিরুদ্ধে বিধিমোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহনে প্রস্তাব দেয়া হয়। সভায় উপস্থিত সদস্যদের সর্বসম্মতিক্রমে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনে সিদ্ধান্ত হয়। ২০ মে অনুষ্ঠিত সভার সিদ্ধান্তসমূহ গতকাল ১৮ জুন অনুষ্ঠিত মাসিক সভায় উপস্থিত সদস্যদের সর্বসম্মতিতে গৃহীত হয়।
বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত মাসিক সভায় উপজেলা চেয়ারম্যান উপস্থিত ছিলেন। চেয়ারম্যান নাজমা খানমের উপস্থিতিতে উপজেলার ১৭ ইউপি চেয়ারম্যান ও পৌর মেয়র উপস্থিত ছিলেন। উপস্থিত সদস্যদের মতামতের ভিত্তিতে এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে বলে জানাগেছে।
উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান একজন দায়িত্বশীল ব্যক্তি হওয়া স্বত্ত্বেও গত ৪ এপ্রিল চাল আটকের ঘটনায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য’র আত্মীয়-স্বজনকে নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে বেফাস মন্তব্য করারও সমালোচনা করেন উপস্থিত সদস্যরা। গত ১৬ মার্চ উপজেলা চেয়ারম্যান পুত্র আসিফ খান অভির নেতৃত্বে একদল উচ্ছৃংখল যুবক বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্লাস্টিক আসবাবপত্র সরবরাহ সংক্রান্ত ফাইল স্বাক্ষর করতে ইউএনও’র অফিস কক্ষে আসেন। কিন্তু ফাইল অসম্পূর্ন হওয়ায় স্বাক্ষর করতে রাজি না হলে ইউএনও, উপজেলা প্রকৌশলী ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তাকে অপমানজনক কথা ও হুমকি দিয়ে চলে যায় অভি। বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টা থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত দীর্ঘ সময় উপজেলা হলরুমে এ সভা চলে।
সভায় উপস্থিত ইউপি সদস্য আব্দুর রাজ্জাক বলেন, উপজেলা চেয়ারম্যানের দায়িত্বহীন আচরন কোনভাবেই মেনে নেয়া যায় না।
উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নাজমা খানম বলেন, তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে।
উপজেলা নির্বাহী অফিসার আহসান উল্লাহ শরিফী বলেন, মাসিক সভায় উপস্থিত সদস্যদের সর্বসম্মতিতে এ সিদ্ধান্তসমূহ গৃহীত হয়েছে।


Warning: A non-numeric value encountered in /home/njybpvbk/public_html/wp-content/themes/Newspaper/includes/wp_booster/td_block.php on line 1009

Warning: Use of undefined constant TDC_PATH_LEGACY - assumed 'TDC_PATH_LEGACY' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/njybpvbk/public_html/wp-content/plugins/td-composer/td-composer.php on line 109

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here