যশোরের ১৭ এলাকা রেড জোন : মঙ্গলবার থেকে লকডাউন

0
101

সত্যপাঠ ডেস্ক : যশোর জেলার ছয় পৌরসভার ১১টি ওয়ার্ড ও তিন উপজেলার ৬ ইউনিয়নকে রেড জোন ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া দু’টি পৌরসভার চারটি ওয়ার্ড এবং সাত উপজেলার ১৩ ইউনিয়নকে ইয়েলো জোন ঘোষণা করেছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। রেড জোনে আগামীকাল মঙ্গলবার (১৬ জুন) সকাল ৬টা থেকে লকডাউন শুরু হবে।
সোমবার (১৫ জুন) দুপুরে যশোর জেলা প্রশাসকের সভাকক্ষে করোনাভাইরাস নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ সংক্রান্ত জেলা কমিটির সভায় এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।
যশোরের সিভিল সার্জন ডা. শেখ আবু শাহীন জানান, রেড জোন ঘোষিত এলাকার মধ্যে রয়েছে যশোর পৌরসভার ৩ নম্বর ওয়ার্ড, আরবপুর ও উপশহর ইউনিয়ন, অভয়নগর পৌরসভার ২, ৪, ৫, ৬, ৯ নম্বর ওয়ার্ড এবং চলিশিয়া, পায়রা ও বাঘুটিয়া ইউনিয়ন। চৌগাছা পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ড, শার্শা পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ড এবং শার্শা সদর ইউনিয়ন, ঝিকরগাছা পৌরসভার ২ ও ৩ নম্বর ওয়ার্ড এবং কেশবপুর পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ড।
ইয়েলো জোন:
ইয়েলো জোনের মধ্যে রয়েছে যশোর পৌরসভার ৬,৭ ও ৮ নম্বর ওয়ার্ড, কাশিমপুর ও ফতেপুর ইউনিয়ন, মণিরামপুর উপজেলার খেদাপাড়া, ঝাঁপা ও কাশিমনগর ইউনিয়ন, অভয়নগর উপজেলার প্রেমবাগ, শ্রীধরপুর ও শুভরাঢ়া এবং পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ড, ঝিকরগাছা উপজেলার গদখালী ও বাঁকড়া ইউনিয়ন, চৌগাছার স্বরূপদহ ইউনিয়ন, বাঘারপাড়ার বাসুয়াড়ী ইউনিয়ন এবং কেশবপুর উপজেলার কেশবপুর সদর ইউনিয়ন।
গ্রিন জোন:
গ্রিন জোনভুক্ত এলাকাগুলো হচ্ছে: যশোর পৌরসভার ১,২,৪,৫ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ড এবং সদরের হৈবতপুর, লেবুতলা, ইছালি, নওয়াপাড়া, চুড়ামনকাটি, দেয়াড়া, চাঁচড়া, রামনগর, কচুয়া, নরেন্দ্রপুর ও বসুন্দিয়া ইউনিয়ন, মণিরামপুর পৌরসভার ১ থেকে ৯ নম্বর ওয়ার্ড এবং রোহিতা, ভোজগাতি, হরিদাসকাটি, মশ্মিমনগর, চালুয়াহাটি, শ্যামকুড়, খানপুর, দুর্বাডাঙ্গা, কুলটিয়া, নেহালপুর, মনোহরপুর, ঢাকুরিয়া, মণিরামপুর ও হরিহরনগর, বাঘারপাড়া পৌরসভার ১ থেকে ৯ নম্বর এবং ইউনিয়নগুলো হচ্ছে জহুরপুর, বন্দবিলা, রায়পুর, নারিকেলবাড়িয়া, ধলগ্রাম, দোহাকুলা, দরাজহাট ও জামদিয়া, ঝিকরগাছা পৌরসভার ১, ৪, ৫ থেকে ৯ নম্বর ওয়ার্ড এবং গঙ্গানন্দপুর, মাগুরা, শিমুলিয়া, পানিসারা, ঝিকরগাছা, নাভারণ, নির্বাসখোলা, হাজিরবাগ ও শংকরপুর ইউনিয়ন, কেশবপুর পৌরসভার ২ থেকে ৯ নম্বর ওয়ার্ড এবং ত্রিমোহিনী, সাগরদাঁড়ি, মজিদপুর, বিদ্যানন্দকাটি, মঙ্গলকোট, পাঁজিয়া, সুফলাকাটি ও গৌরিঘোনা ইউনিয়ন, চৌগাছা পৌরসভার ১ থেকে ৯ নম্বর ওয়ার্ড এবং ফুলসারা, পাশাপোল, সিংহঝুলি, ধুলিয়ানী, চৌগাছা, জগদীশপুর, পাতিবিলা, হাকিমপুর, নারায়ণপুর ও সুখপুকুরিয়া ইউনিয়ন, অভয়নগর পৌরসভার ৩,৭ ও ৮ নম্বর ওয়ার্ড এবং সুন্দলী ও সিদ্দিপাশা ইউনিয়ন, শার্শা উপজেলার ডিহি, লক্ষ্মণপুর, বাহাদুরপুর, বেনাপোল, পুটখালী, গোগা, কায়বা, বাগআঁচড়া, উলাসী ও নিজামপুর ইউনিয়ন।
সিভিল সার্জন বলেন, রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত এলাকা লকডাউন করা হবে। ১৬ জুন সকাল ৬টা থেকে এ ব্যবস্থা কার্যকর করা হবে। সেক্ষেত্রে ওই এলাকার মানুষের চলাচল ও বাজার সীমাবদ্ধ এবং চাকরিজীবীরা বাড়িতে বসে কাজ করবে এবং জনপ্রশাসনের নির্দেশনা অনুযায়ী সরকারি চাকরিজীবীরা সাধারণ ছুটিতে থাকবেন।
তিনি বলেন, উপজেলা প্রশাসন ও ইউনিয়ন কমিটি স্ব স্ব এলাকায় লকডাউন বাস্তবায়ন করবে। একইসঙ্গে ইয়েলো জোনের নাগরিকদের জন্যে সতর্কতামূলক পদক্ষেপ গ্রহণে নির্দেশনা জারি করা হয়েছে।
যশোরের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শফিউল আরিফ জানান, সভায় সিভিল সার্জন রেড, ইয়েলো ও গ্রিন জোনের তালিকা উপস্থাপন করেন। তার উত্থাপিত তালিকার পরে আলোচনা এবং অনুমোদন করা হয়েছে। এই সিদ্ধান্ত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে পাঠানোর জন্যে সিভিল সার্জনকে বলা হয়েছে।
জেলা প্রশাসকের সভাপতিত্বে সভায় সিভিল সার্জন ছাড়াও জেলার দায়িত্বপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা লে. ক. নেয়ামুল, পুলিশ সুপার মুহাম্মদ আশরাফ হোসেনসহ কমিটির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here