বাজেটের প্রতিক্রিয়াঃ চরম উচ্চোভিলাসী , বাস্তবতা বিবর্জিত, কল্পনা বিলাসী গণ-বিরোধী বাজেট

0
97

সত্যপাঠ ডেস্ক: বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি (মাকর্সবাদী)’র সভাপতি কমরেড নুরুল হাসান ও সাধারণ সম্পাদক কমরেড ইকবাল কবির জাহিদ এক বিবৃতিতে বলেন, গতকাল পার্লামেন্টে উত্থাপিত বাজেট চরম উচ্চভিলাসী, বাস্তবতা বিবর্জিত, কল্পনা বিলাস ও ফাকা বুলিসর্বেস, জনগণকে বোকা বানানোর প্রয়াস মাত্র। গত বাজেটের নির্ধারিত প্রবৃদ্ধি অর্জন করা সম্ভব হয়নি। আর এবার করোনা আক্রান্ত বিশ্ব পরিস্থিতিতে ৮.২% লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের ঘোষণা হাস্যকর। জীবন জীবিকা, বেকারত, সমাজিক নিরাপত্তা, স্বাস্থ্য বিষয়ের প্রতি অগ্রাধিকার না দিয়ে উন্নয়নের নামে প্রবৃদ্ধি দেখিয়ে লুটপাটের প্রক্রিয়ায় ধণ বৈষম্যমে বাড়িয়ে তোলা ও লুটেরাদের স্বার্থ সংরক্ষণের ব্যবস্থা চুড়ান্ত করা হয়েছে।

নেতৃবৃন্দ বলেন, বাজেটের রাজস্ব আয়, ব্যাংক ঋণ ও বৈদেশিক সাহায্যের অর্থ সংকুলানের যে কথা বলা হয়েছে তা জনগণের ঘাড়ে মরার উপর খাড়ার ঘা’ এর সামিল।

বাজেটে বর্তমান বাস্তবতায় দেশ বাঁচাতে পারে যে কৃষি খাত তাকে অবহেলা করে বরাদ্দ রাখা হয়েছে মাত্র ৫.৩%। জাতীয় স্বার্থ ও বেকার সংকট নিরসনে রাষ্টায়াত্ব শিল্প ও রুগ্ন শিল্পখাত সবল করার বিষয় উপেক্ষা করে মাত্র ০.৭% বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। করোনা পরিস্থিতিতে আমাদের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার নগ্ন রূপ ও বেরিয়ে এসেছে। সেখানে পরীক্ষা, চিকিৎসা ও নিরাময়ে সারাধণ রোগীরা বঞ্চিত হয়ে পথেঘাটে মৃত্যুবরণ করছে। সেই স্বাস্থ্য খাতকে উপেক্ষা করে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে মাত্র ৫.১%। যা দ্বারা সরকারের মানবিক মূল্যবোধ বোঝা যায়। এখানে নূন্যতম ১০% বরাদ্দ দেওয়ার দাবি উপেক্ষিত হয়েছে। শিক্ষাখাতও গুরুত্ব পায়নি, বরাদ্দকৃত অর্থ অবকাঠামো উন্নয়নে ব্যয় হবে, মান উন্নয়ন ও জাতীয়করন যেখানে জরুরী তার দিক নির্দেশনা নেই। সামাজিক কল্যাণ ও নিরাপত্তা খাতে বরাদ্দ ৫.৬%, যা অপ্রতুল শুধু নয় বেকারত্ব মোকাবেলা ও রেশনিং ব্যবস্থার কোন দিক নির্দেশনা নেই। অপরদিকে মোবাইল ও ইন্টারনেট ব্যবহারের উপর যে কল রেট আরোপ করা হয়েছে তা জনস্বার্থ পরিপন্থি। ফলে বাজেট জনজীবনের সংকট মোকাবেলায় ভূমিকা পালন করতে পারবে না।

উপরন্তু বাজেটে পাবলিক এডমিনেষ্ট্রেশনের জন্য বরাদ্দ রাখা হয়েছে ১৯.৯৯% যা মোট বাজেটের ৫ ভাগের ১ ভাগ। অবৈধ টাকা ও অর্থ পাচারকারীদের ১০% জমা দিয়ে কালো টাকা সাদা করার সুযোগ করে দেয়ার মাধ্যমে রাষ্ট্র সরকার যে দুর্বৃত্ত, লুটেরা পুঁজিপতি ও আমলাদের পক্ষে এ বাজেট পেশ করেছে, এটি তার একটি দলিল। এ বাজেট বাস্তবায়নে গণদুর্ভোগ, নির্যাতন ও নিপীগড় বাড়বে। অতীতের মতো ছত্রে ছত্রে দুর্নীতি মানুষের জীবনকে অতিষ্ঠ করে তুলবে।

উল্লেখ্য যে, করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্য, খাদ্য নিরাপত্তায় যে দুর্নীতি হচ্ছে সরকারের জিরো টলারেন্সে ঘোষণা তা মিথ্যা ফানুষ প্রমাণিত হয়েছে। তার পুনরাবৃত্তি অব্যাহত থাকবে।

নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, এমতাবস্থায় একথা পরিস্কার করে বলা যায়, করোনা পরিস্থিতির মধ্যদিয়ে দেশ যে ভয়াবহ মানবিক অর্থনৈতিক সংকটের মধ্যে পড়েছে, এ বাজেট তা মোকাবেলা করতে পারবেনা। প্রকৃতপক্ষেই এই বাজেট ১% দুর্বৃত্ত, লুটেরা বুর্জোয়া শ্রেণি ও আমলাদের স্বার্থ রক্ষা করবে। ফলে এই বাজেট গণ বিরোধি। আমরা তা প্রত্যাখান করছি।

বার্তা প্রেরক

সিরাজুম মুনীর

মিডিয়া সেল

ইনচার্জ


Warning: A non-numeric value encountered in /home/njybpvbk/public_html/wp-content/themes/Newspaper/includes/wp_booster/td_block.php on line 1009

Warning: Use of undefined constant TDC_PATH_LEGACY - assumed 'TDC_PATH_LEGACY' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/njybpvbk/public_html/wp-content/plugins/td-composer/td-composer.php on line 109

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here