ঈশ্বর ঘুমিয়ে পড়েছেন

0
108

ঈশ্বর ঘুমিয়ে পড়েছেন

-মুনির সিরাজ
ঈশ্বর ঘুমিয়ে পড়েছেন।
মানুষের কোনো প্রার্থনাই
তাঁকে আর জাগাতে পরছে না।
ঈশ্বর ব্রহ্মান্ডে একটি সাজানো বাগান
তৈরি করেছিলন।
বৃক্ষ নদী ঝরনা পাহাড়, তুষারাবৃত পর্বত,
শষ্যের ক্ষেত, পাখি, প্রজাপতি, আর
সবুজ কার্পেটে মোড়া অবারিত প্রান্তর।
দিয়েছিলেন বৃষ্টি, মেঘ, মলয়ের স্পর্শ,
ফেনিল ঢেউয়ের দোলা লাগানো মহাসমুদ্র।
পৃথিবীর গর্ভে দিয়েছিলেন
হীরা চুনি পান্না স্বর্নের অগাধ বিস্ময়।
কিন্তু দূর্ভাগ্য ঈশ্বরের,
ঈশ্বর মানুষ সৃষ্টি করে সঙ্কটাপন্ন হয়ে পড়লেন?
মানুষ বাতাসে কার্বনের কণা ছড়িয়ে দিল,
জলধারাকে দুষিত করল,
কীটনাশকে ধ্বংস হলো
বহু বৃক্ষের প্রজাতি, শষ্য, পাখি, মীন ও শকুন;
মহাসমুদ্রে প্রাণীদের কাল কাটে প্রচন্ড অস্থিরতায়।
গুম খুন হত্যা ক্ষুধা ব্যাভিচার নির্যাতন
প্রতিদিনের ঘটনা।
এবার পৃথিবীর পালা। বিষে জর্জরিত পৃথিবী
ঈশ্বরের পায়ে পড়ে বল্লো – আমাকে বাঁচাও!
ঈশ্বরের হৃদয় কম্পিত হলো,
কপাল থেকে ফোঁটা ফোঁটা ঘাম ঝরতে থাকলো।
বিস্ময়ে হতবাক ঈশ্বর!
আমার সৃষ্টির অনির্বচনীয় পৃথিবীর একি চেহারা?
এমন কালিমালিপ্ত?
কোথায় সেই সবুজ নীল রঙধনুর রঙ-
কে করেছে এইসব?
স্তিমিত শ্রান্ত ক্লান্ত কাতর পৃথিবী বল্লো – মানুষ!
অতএব ঈশ্বর মানুষকে গৃহবন্দি করার ব্যবস্থা করলেন
এক করুণাহীন ’করোনা’ পাঠিয়ে।
পৃথিবী আবার দীর্ঘশ্বাস টেনে সুস্থির আনন্দিত হলো।
প্রশান্ত ঈশ্বর
তারপর নিশ্চিন্তে ঘুমিয়ে পড়েছেন,
তাঁকে আর জাগানো যাচ্ছে না।
কবি মুনির সিরাজ
কবি, প্রাবন্ধিক ও অনুবাদক

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here