ফেনসিডিল উদ্ধারের নাটক করে চিকিৎসার ৩ লাখ ৮৬ হাজার ৪শত টাকা নিয়ে মাদক মামলা দেওয়ার অভিযোগ

0
151

বেনাপোল প্রতিনিধি : শার্শার পাকসিয়া গ্রামে পৃথক অভিযানে ৩৩ বোতল ফেনসিডিল ও নগদ ৩ লাখ ৮৬ হাজার ৪শত টাকা উদ্ধারের ঘটনা নিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে।
শুক্রবার রাত্রে শার্শার শালকোনার ৪৯ বিজিবি পাকসিয়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে শফিকুল নামে এক যুবককে আটক করে ৮ বোতল ফেনসিডিল সহ। ওই রাত্রে একই গ্রামের ফুলসুদ্দিনের বাড়ি অভিযান চালিয়ে নগদ ৩ লাখ ৮৬ হাজার ৪ শত টাকা উদ্ধার করলেও ওই বাড়ি থেকে কোন ফেনসিডিল উদ্ধার না করে ২৫ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার দেখিয়ে মাদক মামলার আসামি করা হয়েছে ফুলসুদ্দিনকে এমন অভিযোগ করেছে বাড়ির লোকজন ও একজন ইউপি সদস্য।
পাকসিয়া গ্রামের ফুলসুদ্দিনের স্ত্রী অভিযোগ করে বলেন, রাত ১০ টার দিকে বিজিবি তার বাড়িতে এসে তালা ভেঙ্গে বাক্সের ভেতর থেকে তার স্বামীর চিকিৎসার ৩ লাখ ৮৬ হাজার ৪ শত টাকা নিয়ে যায়। এ টাকা তার গরু ও জমি বিক্রির টাকা। তার স্বামীর হার্টে দুটি ব্লক ধরা পড়েছে। করোনা ভাইরাসের কারনে সে চিকিৎসা নিতে ঢাকায় যেতে পারছে না। এ কারনে টাকা ঘরে রাখা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, তার গহনা ও বিজিবি নিয়েছিল। পরে স্থানীয় মেম্বারের উপস্থিতিতে তা ফেরত দেওয়া হয়।
অপরদিকে ৪৯ বিজিবির শালকোনা ক্যাম্পের সুবেদার মালেক বলেন, পাকসিয়া গ্রামের নুর ইসলামের ছেলে শফিকুলকে ৮ বোতল ফেনসিডিল সহ আটক করে তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী ফুলসুদ্দিনের ঘর থেকে ২৫ বোতল ফেনসিডিল ও নগদ ৩ লাখ ৮৬ হাজার ৪ শত টাকা উদ্ধার করা হয়।
বাংলা টাকা কেন নিলেন এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এটা ফেনসিডিল ব্যবসার টাকা তাই নিয়ে মামলা দিয়ে শার্শা থানায় জমা করা হয়েছে। ফেনসিডিল কোথা থেকে উদ্ধার হয়েছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, তার খাটের নীচের থেকে উদ্ধার হয়েছে।
স্থানীয় একজন আওয়ামী লীগ নেতা বলেন, ফেনসিডিল উদ্ধার বিজিবির নাটক। ফুলসুদ্দিনের বাড়ি থেকে টাকা উদ্ধার হয়েছে এটা সত্য তবে তার বাড়ি কোন ফেনসিডিল ছিল না। বিজিবি তার নামে মামলা দেওয়ার জন্য ফেনসিডিল উদ্ধার দেখিয়েছে।
ঘটনার সময় উপস্থিত ওই এলাকার মোমিন উদ্দিন নামে একজন মেম্বার বলেন, ফুলসুদ্দিনের বাড়ি থেকে শুধু টাকা উদ্ধার হয়েছে। কোন ফেনসিডিল উদ্ধার হয়নি। বিজিবি অযথা টাকা উদ্ধার দেখিয়ে ২৫ বোতল ফেনসিডিল এর মামলা দিয়েছে ফুলসুদ্দিনের নামে। এ টাকা তার হার্টের চিকিৎসার টাকা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here