বোটায় বোটায় ঝুলছে খলিলের সোনালী স্বপ্ন

0
171

শফিয়ার রহমান, মণিরামপুর থেকে : বানে বোটায় বোটায় ঝুলছে খলিলের সোনালী স্বপ্ন গোল্ডেন ক্রাউন, যা ‘মাল্টা তরমুজ’ নামে পরিচিত। খলিল একমাত্র কৃষক যিনি চুয়াডাঙ্গা জেলা থেকে এ জাতের তরমুজের বীজ এনে এই অঞ্চলে প্রথম আবাদ করেছে। চাষকৃত ২ বিঘা জমিতে এ জাতের তরমুজের বাম্পার ফলন হয়েছে। এখন করোনার প্রাদূর্ভাবের ঘোষিত লকডাউন উঠে গিয়ে দেশের পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে ভাল বাজার দর পেয়ে লাভের আশা দেখছেন তিনি।
খলিল মনিরামপুর পৌর এলাকার তাহেরপুর গ্রামের সৈয়দ আহম্মেদের ছেলে। বরাবরই খলিল বাজারে চাহিদা সম্পন্ন নতুন জাতের ফসল ও সবজি চাষ করেন। নতুন জাতের ফল ও সবজি চাষ করে বলেই উপজেলা কৃষি অফিস থেকে বরাবরই সহযোগিতা পেয়ে থাকে তিনি। তার লজিকৃত ২০ বিঘা জমিতে বিভিন্ন ধরনের ফল ও সবজি রয়েছে। কিন্তু করোনার কারনে সাড়ে ৬ বিঘা জমিতে চাষকৃত গ্রীস্মকালীন লাল বাঁধা কপি পাইকারী ক্রেতা ও পরিবহন সংকটে প্রায় দেড় লাখ টাকা আর্থিক ক্ষতি হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন। মাল্টা তরমুজে ক্ষতি পুষিয়ে নিতে স্বপ্ন দেখছেন তিনি।
সরেজমিন গেলে চোখে পড়ে সবুজ গাছের বোটাই বোটাই বাশের চটা আর নেট (প্লাস্টিকের জাল)-সুতায় তৈরী বানের নিচে ঝুলছে সোনালী রঙের মাল্টা তরমুজ। ফলন ভাল হওয়ায় খলিলের চোখ মুখে আনন্দের ছোয়া ফুঁটে উঠেছে। কথা বলতেই মিচকি হাসি দিয়ে খলিল জানায়, তিনি সব সময় আলাদা কিছু চাষ করেন। এতে বাজারে ভাল দামের পাশাপাশি চাহিদাও থাকে বেশ। সপ্তাহ খানেক পরই তরমুজ বাজারে উঠবে। এতে প্রতিটির দাম ৮০ থেকে ১শ’ টাকা পাবেন বলে তিনি আশা করছেন। এ তরমুজ বাইরে (দেশের বড় শহরে) পাঠাতে পারলে দ্বিগুন দাম পাবেন বলে তিনি আশা করেন।
খলিল আরো জানায়, চুয়াডাঙ্গা থেকে প্রতি গ্রাম হাজার টাকা দরে ৬০ গ্রাম বীজ সংগ্রহ করে ফাল্গুন মাসে। বীজ বপনের পর গাছ ৬ ইঞ্চি লম্ব হলে বাঁশের চটা দিয়ে বান (মাচান) দেয়া হয়। বপনের ২৫/৩০ দিন পর ফুল আসে এবং ৫৫/৬০ দিনের মাথায় ফল কাটা শুরু হয়।
উপজেলা কৃষি অফিসার হীরক কুমার সরকার বলেন, নতুন জাতের ফল ও সবজি চাষে খলিলকে আমরা সব ধরনের সহযোগিতা দিয়ে থাকি।


Warning: A non-numeric value encountered in /home/njybpvbk/public_html/wp-content/themes/Newspaper/includes/wp_booster/td_block.php on line 1009

Warning: Use of undefined constant TDC_PATH_LEGACY - assumed 'TDC_PATH_LEGACY' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/njybpvbk/public_html/wp-content/plugins/td-composer/td-composer.php on line 109

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here