চৌগাছায় হাসপাতাল পালানো গর্ভবর্তীর সংস্পর্শে আসা তিন নার্সসহ ৪ জন করোনা সনাক্ত

0
139

চৌগাছা প্রতিনিধি : যশোরের চৌগাছায় সরকারি হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগের তিন নার্সসহ ৪ নারী নতুন করে করোনা সনাক্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগের ৩ নার্স এর আগে সনাক্ত হওয়া হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যাওয়া গর্ভবতী নারীর সংস্পর্শে এসেছিলেন। অন্য সনাক্ত নারী শহরের ডিভাইন গার্মেন্টসের একজন কর্মী। মঙ্গলবার সকালে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. লুৎফুন্নাহার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।
এনিয়ে চৌগাছায় করোনা রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাড়ালো ১১ জন। যা জেলার ২৫ শতাংশ।
হাসপাতাল সূত্র জানায় ২২ এপ্রিল উপজেলার বানুড়হুদা গ্রামের গর্ভবতী ২৮ বছর বয়সী ওই নারী হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগে ভর্তি হন। হাসপাতালের চিকিৎসকদের ওই নারীর করোনা উপসর্গ থাকায় ২৩ এপ্রিল তার নমুনা সংগ্রহ করে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জিনোম সেন্টারে পাঠানো হয়। নমুনা পরীার জন্য পাঠানোর পরপরই ওই নারী হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যায়। ২৫ এপ্রিল ওই নারীর করোনা পজেটিভ রিপোর্ট আসে। ২৬ এপ্রিল হাসপাতালে ওই নারীর সংস্পর্শে আসা স্টাফদের নমুনা সংগ্রহ করে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের জিনোম সেন্টারে পাঠানো হয়। সেখানে সোমবার পরীায় হাসপাতালের ওই তিন নার্স করোনা পজেটিভ হন। এছাড়া রোববার চৌগাছার ডিভাইন গার্মেন্টেসের দুটি ফ্যক্টরী খুলে দেয়া হয়। ওইদিন গার্মেন্টসে ঢুকানোর সময় স্কানারে এক নারীকর্মী ও এক পুরুষ কর্মীর গায়ে জ্বর থাকায় তাদের গার্মেন্টসে ঢুকতে দেয়া হয়নি। ওইদিনই ওই নারী কর্মী হাসপাতালে এসে নমুনা দেন। মঙ্গলবার ওই নারী কর্মীর করোনা রিপোর্ট পজেটিভ আসে। মঙ্গলবার ডিভাইনের ওই পুরষকর্মীর নমুনা পাঠানো হবে বলে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা।
চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. লুৎফুন্নাহার বলেন হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যাওয়া গর্ভবতী নারীর সংস্পর্শে আসা প্রসূতি বিভাগের ৩ জন নার্স করোনা পজেটিভ হয়েছেন। এছাড়া শহরের ডিভাইন গার্মেন্টসের এক নারী কর্মীর করোনা পজেটিভ হয়েছেন। তিনিও হাসপাতালে আসলে আমাদের সন্দেহ হওয়ায় তার নুমনা পাঠানো হয়। তিনি আরো বলেন ডিভাইনের ওই গার্মেন্টস লকডাউন করা হবে।
এরআগে ২২ এপ্রিল চৌগাছার প্রথম রোগী হিসেবে এক নারী ও এক কিশোর সনাক্ত হন। এরপর ২৫ এপ্রিল সনাক্ত হয় এক গর্ভবতী নারীর। ২৬ এপ্রিল সনাক্ত হন প্রথমদিন সনাক্ত নারীর স্বামী এবং প্রথমদিন সনাক্ত কিশোর স্কুলছাত্রকে চিকিৎসা দেয়া চৌগাছা উপজেলা হাসপাতালে জরুরি বিভাগের মেডিকেল অফিসার। ২৭ এপ্রিল সনাক্ত হয় ওই কিশোর স্কুলছাত্রের নানা ও নানী। মঙ্গলবার সনাক্ত হলেন হাসপাতাল থেকে পালানো করোনা সনাক্ত নারীর সংস্পর্শে আসা প্রসূতি বিভাগের তিনজন নার্স এবং ডিভাইন গার্মেন্টসের ওই নারী কর্মী সনাক্ত হলেন।


Warning: A non-numeric value encountered in /home/njybpvbk/public_html/wp-content/themes/Newspaper/includes/wp_booster/td_block.php on line 1009

Warning: Use of undefined constant TDC_PATH_LEGACY - assumed 'TDC_PATH_LEGACY' (this will throw an Error in a future version of PHP) in /home/njybpvbk/public_html/wp-content/plugins/td-composer/td-composer.php on line 109

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here