যশোরে অসহায় পরিবারের মাঝে নাসিবের খাদ্য সহায়তা প্রদান

0
196

সত্যপাঠ রিপোর্ট : যশোরে অসহায় ২ হাজার পরিবারের মাঝে মানবিক সহায়তা পৌঁছে দিতে কাজ শুরু করেছে জাতীয় ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প সমিতি বাংলাদেশ (নাসিব) যশোর জেলা শাখা। বুধবার দুপুরে যশোর বিসিক শিল্প সহায়ক কেন্দ্র থেকে ২ শতাধিক পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন যশোর কোতয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) তাসমিম আহমেদ, নাসিব যশোর জেলা শাখার সভাপতি সাকির আলী, বিসিক যশোরের উপ-মহাব্যবস্থাপক ফরিদা ইয়াসমিনসহ শিল্প মালিকগণ।
নাসিব যশোর জেলা শাখার সভাপতি সাকির আলী জানান, করোনা ভাইরাসের কবলে সারা বিশ্ব। এমন পরিস্থিতে দেশের জনগণ কর্মহীন হয়ে পড়েছে। বিসিক শিল্প এলকার অনেক শ্রমিক এখন মানবেতর জীবনযাপন করছেন। এমন পরিস্থিতিতে বিসিকের শিল্প মালিকদের সহযোগিতায় জাতীয় ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প সমিতি বাংলাদেশ (নাসিব) যশোরের পক্ষ থেকে ২ হাজার পরিবারকে খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দেয়ার উদ্যোগ নেয়া হছে। বুধবার থেকে একার্যক্রম শুরু হয়েছে। চলবে আগামী ২৭ এপ্রিল সোমবার পর্যন্ত। সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে সকলকে খাদ্য সহায়তা পৌছে দেয়ার জন্য একদিনে না দিয়ে কার্ডের মাধ্যমে পর্যায়ক্রমে ২ হাজার পরিবারের মাঝে এ খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেয়া হবে।
তিনি আরোও বলেন, করোনার প্রাদুর্ভাব রোধে সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটি চলার কারণে এখানকার শিল্প প্রতিষ্ঠানগুলো আর্থিকভাবে চরম ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে। এভাবে চলতে থাকলে ব্যবসায়ীরা তাদের ব্যবসা টিকিয়ে রাখতে পারবে কিনা সন্দেহ। আজ ব্যবসায়ীদের এই দূরাবস্থার মধ্য দিয়েও তারা অসহায় মানুষের সহযোগিতায় হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। এখানকার শিল্প মালিক ও শ্রমিকদের বাঁচিয়ে রাখতে সরকার ঘোষিত প্রণোদনা পাওয়া জরুরী। ব্যবসায়ীদের জন্য সরকার ঘোষিত প্রণোদনা সঠিকভাবে বন্টনের জন্য নাসিবের পাশাপাশি সরকারের সংশ্লিষ্ঠ কর্তৃপক্ষের যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি জানান তিনি।
খাদ্য সহায়তা প্রদানকালে কোতয়ালী মডেল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) তাসমীম আহমেদ বলেন, করোনা ভাইরাসের সংক্রমন দিনকে দিন বেড়েই চলেছে। করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় সকলকে সচেতন হতে হবে। সরকারের দেওয়া দিক নির্দেশনা মেনে চলতে হবে। প্রয়োজন ছাড়া কেউ ঘর থেকে বের না হওয়া এবং সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে প্রয়োজনীয় কাজ করার পরামর্শ দেন তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here